ধামরাইয়ে জুতার মালা পরানোর ঘটনায় ইউপি সদস্যসহ গ্রেফতার ৫

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি সাভার
প্রকাশিত: ১১:৫৪ পিএম, ২৭ এপ্রিল ২০১৯

ঢাকার ধামরাইয়ে এক গৃহবধূকে কুপ্রস্তাব দেয়ার ঘটনায় সালিশ বৈঠকে নুরুল ইসলাম নামে এক বখাটে দোষী সাব্যস্ত হওয়া গলায় জুতার মালা পড়িয়ে গ্রাম ঘুরানো ও জুতাপেটা করা হয়। এ ঘটনায় ইউপি সদস্যসহ ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

তাদের শনিবার বিকেলে আদালতে পাঠানো হয়। এর আগে শুক্রবার রাতে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। যৌন হেনস্তার অভিযোগে নুরুল ইসলামের বিরুদ্ধে একটি এবং নুরুলকে জুতা পেটাসহ সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করে বিচার নিজেদের হাতে তুলে নেয়ায় ইউপি সদস্যসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে আরেকটি মামলা করে।

গ্রেফতারকৃত বাকি ব্যক্তিরা হলেন- সালিশ বৈঠকের সভাপতি কুল্লা ইউনিয়ন পরিষদের ২নং ওয়ার্ডের সদস্য শহিদুল ইসলাম, গৃহবধূর স্বামী সোমভাগ ইউনিয়ন পরিষদের বানেশ্বর গ্রামের আসলাম হোসেন, গৃহবধূর শ্বশুর কফিল উদ্দিন, গৃহবধূর বাবা কুল্লা ইউনিয়নের হীরা নদী কুল্লা গ্রামের জুলহাস উদ্দিন, আওলাদ হোসেনের ছেলে মহিদুল ইসলাম।

ধামরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দীপক চন্দ্র সাহা জানান, সোমভাগ ইউনিয়নের বানেশ্বর গ্রামের আসলাম হোসেনের স্ত্রীকে একই গ্রামের নুরুল ইসলাম দীর্ঘদিন ধরে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছে। এ নিয়ে গত শুক্রবার আসলামের বাড়িতে সালিশ বৈঠক বসে। সালিশে নুরুল ইসলাম দোষী সাব্যস্ত হয়। পরে নুরুল ইসলামকে ১০১টা জুতাপেটা ও গলায় জুতার মালা পড়িয়ে গ্রাম ঘুরানো হয়। এ সব ঘটনার প্রেক্ষিতে ধামরাই থানায় মোট দুইটি মামলা হয়েছে।

জেএইচ

আপনার মতামত লিখুন :