যাত্রী সেজে ছাদে উঠে চট্টলা এক্সপ্রেস ট্রেনে ডাকাতি

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ফেনী
প্রকাশিত: ০৮:৩৯ পিএম, ১৩ জুন ২০১৯

ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথের ফেনীর মুহুরীগঞ্জ রেলসেতুর কাছে চট্টগ্রামগামী চট্টলা এক্সপ্রেস ট্রেনে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। ডাকাতি শেষে ট্রেনের তিনটি বগির ছাদের হোস পাইপ খুলে ট্রেন থামিয়ে পালিয়ে যায় ডাকাতরা। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ রেলওয়ে পুলিশের ডিআইজি মো. শাসসুদ্দিন শামস।

বৃহস্পতিবার তার নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের তদন্ত দলটি ফেনী রেলস্টেশন, কালীদহ স্টেশন, মুহুরীগঞ্জ রেলস্টেশন ও ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে ফেনী রেলওয়ে স্টেশনে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

ডিআইজি মো. শাসসুদ্দিন শামস বলেন, ঘটনার রাতে কিছু কিছু যাত্রী স্ট্যাডিং টিকিট কেটে ট্রেনের ছাদে ওঠে। ফেনী স্টেশন পার হওয়ার পর ২০ মিনিট দূরত্বে ১০-১২ জনের ডাকাত দল ট্রেনের ছাদে ঈদ ফেরত যাত্রীদের ওপর চড়াও হয়। যাত্রীদের মারধর ও ছুরিকাঘাত করে মোবাইল ফোন, নগদ টাকা ও মালামাল নিয়ে যায় ডাকাতরা।

ডাকাতরা তিনটি বগির হোস পাইপ খুলে ট্রেন থামিয়ে মুহুরীগঞ্জ রেলসেতুর কাছে নেমে যায়। পরে রেলের কর্মচারীরা হোস পাইপ মেরামত করে ট্রেনটিকে সীতাকুণ্ড স্টেশনে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ডিআইজি মো. শাসসুদ্দিন শামস বলেন, সকালে ঘটনাস্থলে এসে ডাকাতির সত্যতা পেয়েছি আমরা। এটি লাকসাম থানার মধ্যে পড়েছে। ওই থানায় ডাকাতি মামলা হয়েছে। ঘটনার ধারণা নেয়া, তথ্য নেয়া, আলামত জব্দ করা এসব বিষয় নিয়ে আমরা কাজ করছি। যারা ঘটনা ঘটিয়েছে তাদের ধরে আইনের আওতায় আনা হবে।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন- চট্টগ্রাম রেলওয়ের পুলিশ সুপার নওরোজ হাসান তালুকদার, লাকসাম রেলওয়ের পরিদর্শক নাজিম উদ্দিন, ফেনী সদর সার্কেল ঐক্য সিং, ফেনীর রেলওয়ে স্টেশনের মাস্টার মাহবুবুর রহমান, ফেনী মডেল থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) সাজেদুল ইসলাম পলাশ ও ফেনী জিআরপি পুলিশের উপ-পরিদর্শক সাইফুল ইসলাম।

এর আগে বুধবার রাত সাড়ে ৯টায় ঢাকা থেকে চট্টগ্রামগামী চট্টলা এক্সপ্রেস ট্রেনটি ফেনীর মুহুরীগঞ্জ এলাকায় পৌঁছালে ডাকাতির কবলে পড়ে। এ সময় ডাকাত দল ট্রেনের তিনটি বগির ছাদ থেকে যাত্রীদের মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। পরে যাত্রীদের চিৎকারে ডাকাতরা ট্রেন থামিয়ে মুহুরীগঞ্জ রেল সেতু এলাকা থেকে পালিয়ে যায়।

রাশেদুল হাসান/এএম/এমকেএইচ

আপনার মতামত লিখুন :