সন্তানের জন্য মালয়েশিয়ায় গিয়ে বিপদে আছেন বাবা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি যশোর
প্রকাশিত: ০৫:১৪ পিএম, ১৯ আগস্ট ২০১৯

শিশু আলামিনকে দেখে বোঝার উপায় নেই তার হার্টে ছিদ্র। জন্ম থেকেই তার এ সমস্যা এবং দুটি শিরা অকেজো। অপরদিকে, সন্তানের চিকিৎসার জন্যই বাড়তি উপার্জন করতে মালয়েশিয়ায় গিয়ে বিপাকে পড়েছেন আলামিনের বাবা মাহাবুর রহমান।

সেখানে গিয়ে তিনি দালালদের খপ্পরে পড়ে এখন নিঃস্ব। তিন মাস এক প্রতিষ্ঠানে কাজ করলেও কোনো টাকা পাননি তিনি। সব মিলে করুণ অবস্থা তার। আর দেশে আদরের সন্তানকে বাঁচাতে দ্বারে দ্বারে ছুটছেন মা মনিরা খাতুন।

যশোর সদরের নারাঙ্গনখালীর ইছাপুর গ্রামের মাহাবুর রহমান ও মনিরা খাতুনের ছোট ছেলে আলামিন। বয়স মাত্র সাড়ে তিন বছর। তার হার্টের ছিদ্র আকৃতিতে বড় হওয়ায় প্রাণ ভরে শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে পারছে না সে। তার চিকিৎসার জন্য প্রায় চার লাখ টাকা প্রয়োজন।

শিশুটির মা মনিরা খাতুন জানান, ২০১৬ সালের ১ জানুয়ারি তাদের কোল আলোকিত করে জন্ম নেই শিশু আলামীন। ওই বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে শ্বাসকষ্ট শুরু হলে তাকে ডাক্তার দেখানো হয়। ডাক্তার জানান, তাদের সন্তান আলামিনের হার্টে একটি ছিদ্র রয়েছে।

এ কথা শুনে ওই বছরই তারা আলামিনকে ভারতের রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হাসপাতলে নিয়ে যান। সেখানে বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষা করার পর ডাক্তার বিশ্বজিত জানান, আলামিনের হার্টের ছিদ্রটি আকৃতিতে বড়। একই সঙ্গে তার ভালবে ক্ষত এবং দুটি শিরা অকার্যকর হয়ে পড়েছে। তার চিকিৎসা ব্যাঙ্গালুরুর নারায়ণ হেলথ সেন্টারে সম্ভব। এজন্য অনেক টাকা খরচ হবে।

তিনি বলেন, আমাদের কাছে এক লাখ টাকার মতো আছে। বাকি টাকা জোগাড় হলেই নিয়ে যা। কিন্তু কোথায় পাব এত টাকা?

মনিরা খাতুন আরও জানান, তার স্বামী রড মিস্ত্রি। সন্তানের চিকিৎসার জন্য বাড়তি টাকা আয় করতে আড়াই বছর আগে তিনি মালয়েশিয়া যান। সেখানে দালালের খপ্পরে পরে তিনি বিপদে আছেন। দেশেও আসতে পারছেন না।

সন্তানের জন্য তিনি সমাজের দানশীল মানুষগুলোর সাহায্য কামনা করেছেন। আলামিনের অসুস্থতার বিষয়ে কথা বলা যাবে ০১৮৫৭৯৩৫৪৮১ নম্বরে।

মিলন রহমান/এমএএস/এমএস