পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় বিয়ে, দুই মাস পর তরুণী ধরা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ফরিদপুর
প্রকাশিত: ১০:২৪ এএম, ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯
ফাইল ছবি

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার শেখর ইউনিয়নের গঙ্গানন্দপুর গ্রামে বিয়ের দুই মাসের মাথায় এক তরুণী (২০) সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর ওই তরুণীকে বাবার বাড়ি পাঠিয়ে দিয়েছে শ্বশুরবাড়ির লোকজন।

ওই তরুণীর বাবা জানান, দুই মাস আগে তার মেয়ের বিয়ে হয় বড়গাঁ গ্রামে। বিয়ের দুই মাস পর জামাই জানতে পারে যে স্ত্রী সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা। এ ঘটনা জানাজানি হলে তাকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়।

তিনি আরও জানান, পরিবারের লোকজন মেয়েকে চাপ সৃষ্টি করলে সে জানায়- বিয়ের আগে আলফাডাঙ্গা পৌরসভার হিদাডাঙ্গা গ্রামের মো. আক্কাস শেখের ছেলে মিটুল শেখের (২৪) সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সেই সম্পর্কের জের ধরে সে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে। পরে ছেলেটির পরিবারের কাছে সব কিছু খুলে বলা হয়।

জানা গেছে, পরে উভয়পক্ষের অভিভাবকরা বোয়ালমারী উপজেলার শেখর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. ইস্রাফিল মোল্লার কাছে আসেন। তাৎক্ষণিক সালিশ বৈঠক করে তাদের বিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। শালিস বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গত ৯ সেপ্টেম্বর (সোমবার) দুপুরে কাজী শফিকুল ইসলামের গ্রামের বাড়ি সহস্রাইলে তাদের বিয়ে দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে কাজী শফিকুল ইসলাম বলেন, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মো. ইস্রাফিল মোল্লা ও ছেলে-মেয়ের অভিভাবকরা আমার বাড়িতে এসে আমাকে দিয়ে বিয়ে পড়িয়েছে।

শেখর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. ইস্রাফিল মোল্লা বলেন, ছেলে স্বীকার করেছে ওই তরুণীর পেটে তার সন্তান। তাই উভয়পক্ষের অভিভাবকরা আমার কাছে এসে বিয়ের কথা বলেছে। তাদের সম্মতিক্রমেই বিয়ে দিয়েছি। বর্তমানে ওই মেয়ে মিটুল শেখের বাড়িতেই আছে।

আরএআর/জেআইএম