বাড়ি পৌঁছে দেয়ার কথা বলে ৫ম শ্রেণির ছাত্রীকে গণধর্ষণ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নোয়াখালী
প্রকাশিত: ১০:৫০ এএম, ১০ অক্টোবর ২০১৯
ফাইল ছবি

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার আমিশাপাড়া ইউনিয়নে ৫ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে (১৩) গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর মায়ের করা মামলায় সজিব হোসেন (২৫) ও রাজন (২৪) নামে দুই যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার দুপুরে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

এর আগে সকালে ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে তিনজনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে সোনাইমুড়ী থানায় মামলা করেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সকালে মেয়েটি তার বড় বোনের বাড়ি পশ্চিম চাঁদপুর থেকে নিজ বাড়ি আমিশাপাড়া ইউনিয়নের পানিয়া শালা গ্রামের উদ্দেশ্যে রিকশায় করে যাচ্ছিল। পথে আমিশাপাড়া বাজারে রিকশা স্ট্যান্ডের জাহান প্লাজার সামনে নামে সে। এ সময় বজরগ্রাঁও গ্রামের পণ্ডিত বাড়ির নুর নবী বাহারের ছেলে সজিব হোসেন তাকে বাড়ি পৌঁছে দেয়ার কথা বলে সিএনজিতে তুলে নেয়। পরে কিছু দূর যাওয়ার পর সোহাগ ও শুক্কুর মিয়ার বিল্ডিংয়ের সামনে সিএনজিটি বন্ধ করে দেয় সে।

সজিব মেয়েটিকে কিছুক্ষণ টিভি দেখানোর কথা বলে দলিল লেখক সহিদ উল্যাহ সোহাগের বিল্ডিংয়ের ৫ম তলার একটি কক্ষে নিয়ে যায়। সেখানে নাঈম (২৫) ও রাজন ছিলো। এ সময় তারা ওই ছাত্রীকে আটকে রেখে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। ধর্ষণ শেষে তাকে বাড়ির উদ্দেশ্যে একটি রিকশা ভাড়া করে দেয় তারা। এ সময় মেয়েটির চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে সোনাইমুড়ী থানা পুলিশে খবর দেন।

সোনাইমুড়ী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুস সামাদ বলেন, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। মেয়েটিকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আরএআর/জেআইএম