বেতনভুক্ত কর্মচারী দিয়ে ইয়াবা বিক্রি করতেন ডিবির এসআই

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বরিশাল
প্রকাশিত: ০৯:২১ পিএম, ২১ অক্টোবর ২০১৯

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় বরিশাল মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের সাবেক উপপরিদর্শক (এসআই) চিন্ময় মিত্রকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড ও পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

এ মামলার অপর আসামি চিন্ময়ের সহযোগী মাদক ব্যবসায়ী নিধু মিস্ত্রিকে তিন বছরের কারাদণ্ড ও তিন হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও দুই মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়।

সোমবার বিকেলে বরিশাল ১ম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক এম এ হামিদ এ রায় ঘোষণা করেন।এসআই চিন্ময় মিত্র সর্বশেষ নারায়ণগঞ্জ শিল্প পুলিশে কর্মরত ছিলেন।

আদালতের পেশকার মো. মিজানুর রহমান বলেন, ২০১৬ সালের ২৪ জুলাই নগরীর কাশিপুর থেকে নিধু মিস্ত্রি নামে এক ব্যক্তিকে ৪৮ বোতল ফেনসিডিলসহ গ্রেফতার করে পুলিশ। এ ঘটনায় ওই দিনই বিমানবন্দর থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) মো. সুলতান আহম্মেদ বাদী হয়ে মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা করেন। ওই মামলায় আদালতের বিচারক মো. রফিকুল ইসলামের কাছে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন নিধু।

নিধু জবানবন্দিতে বলেন উদ্ধার করা ফেনসিডিল বিক্রির জন্য এসআই চিন্ময় সরবরাহ করেছিল। নিধু এসআই চিন্ময়ের মাসিক বেতনভুক্ত মাদক বিক্রেতা। শুধু ফেনসিডিল নয়, এসআই চিন্ময় মিত্র দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ইয়াবা সংগ্রহ করেন। পরে বরিশাল নগরীসহ আশপাশে চিন্ময়ের নিয়োজিত বেতনভুক্ত মাদক ব্যবসায়ীরা বিক্রি করেন। মহানগর ডিবি পুলিশের এসআই হিসেবে দায়িত্বকালীন সময় মাদক ব্যবসা শুরু করেন চিন্ময়।

মাদক ব্যবসার সঙ্গে সম্পৃক্ততা পেয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের পরিদর্শক রেজাউল ইসলাম ২০১৬ সালের ৫ সেপ্টেম্বর এসআই চিন্ময় মিত্র ও নিধুকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দেন। নয়জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আজ মামলার রায় দেন বিচারক।

এসআই চিন্ময়ের ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র জানায়, মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে বরিশাল থেকে তাকে শাস্তিমূলক বদলি করা হয়। মাদক ব্যবসার মাধ্যমে বরিশাল নগরীর বিভিন্ন স্থানে তিনি নামে-বেনামে জমি কিনেছেন। এছাড়া বিপুল অর্থ-বিত্তের মালিক বনে গেছেন তিনি। ডিবি থেকে বদলি হলেও বিভিন্ন মামলায় সাক্ষ্য দেয়ার অজুহাতে বরিশাল নগরীতে আসেন তিনি। তখন এসে তার নিয়োজিতদের দিক-নির্দেশনা দেয়া ছাড়াও মাদক পৌঁছে দেন চিন্ময়।

সাইফ আমীন/এএম/জেআইএম