রংপুরে জন্মনিবন্ধন সনদ দিতে হয়রানি করা হচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক রংপুর
প্রকাশিত: ০৭:২৩ পিএম, ০৯ নভেম্বর ২০১৯
ফাইল ছবি

রংপুরে জন্মনিবন্ধনে অতিরিক্ত অর্থ গ্রহণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সরকার নির্ধারিত ফি’র চেয়ে কয়েকগুণ বেশি অর্থ আদায় করছেন সংশ্লিষ্টরা। শুধু তাই নয়, ৪৫ দিন বয়স পর্যন্ত শিশুর জন্ম সনদ ফ্রি দেয়ার কথা থাকলেও সেখানে নেয়া হচ্ছে টাকা। তবে ভুক্তভোগীরা এমন অভিযোগ করলেও তা অস্বীকার করেছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।
সরেজমিনে রংপুর সদর উপজেলার মমিনপুর ইউনিয়নে গিয়ে জানা যায়, পাঁচ বছর বয়স থেকে পরবর্তী সময় পর্যন্ত ৫০ টাকা ফি নির্ধারিত থাকলেও সেখানে দেড়শ থেকে ৪০০ টাকা পর্যন্ত নেয়া হচ্ছে।

ওই ইউনিয়নের উত্তর মমিনপুর গ্রামের কলেজছাত্র মাহামুদুল হাসান জানান, জন্মনিবন্ধন সনদ তুলতে তাকে ৫-৬ বার প্রায় তিন কিলোমিটার দূরে ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে যেতে হয়েছে। অবশেষে গত ২৮ সেপ্টেম্বর জন্মসনদ হাতে পেয়েছেন। বিভিন্ন সমস্যার কথা জানিয়ে তার কাছ থেকে নেয়া হয়েছে ৪০০ টাকা।

একই ইউনিয়নের উত্তর মমিনপুর শান্তিপাড়া গ্রামের কলেজছাত্র আজিয়ার রহমান বলেন, ডিজিটাল জন্মনিবন্ধন সনদের জন্য তার কাছে ৩০০ টাকা দাবি করা হয়েছে। ২০০ টাকা অগ্রিম দিয়ে দুই মাস ধরে ঘুরছেন কিন্তু তাকে সনদ দেয়া হচ্ছে না।

এ বিষয়ে মমিনপুর তথ্য ও সেবা কেন্দ্রের উদ্যোক্তা আনোয়ার হোসেন অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, নির্ধারিত ফি’র বাইরে অতিরিক্ত কোনো টাকা নেয়া হয় না। সর্বোচ্চ সাতদিনের মধ্যে জন্মনিবন্ধন সনদ দেয়া হয় বলেও তিনি দাবি করেন। ইউপি সচিব অরুণ কুমার সরকারও অতিরিক্ত অর্থ গ্রহণের বিষয়টি অস্বীকার করেন।

অভিযোগের বিষয়ে মমিনপুর ইউপি চেয়ারম্যান কল্পনা আক্তারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কোনো অতিরিক্ত ফি নেয়া হয় না। এমনকি যারা গরিব, অসহায় তাদের ফ্রি জন্মনিবন্ধন সনদ দেন বলেও তিনি দাবি করেন।

তিনি বলেন, দুই মাস ধরে ঘোরার কোনো রেকর্ড নেই। ইন্টারনেট সার্ভিস ভালো থাকলে একদিনেই দেয়া হয়। যারা অভিযোগ করেছেন তারা ভুল বলেছেন। এ সময় অভিযোগকারীদের তার কাছে পাঠিয়ে দিতেও বলেন তিনি।

এদিকে মিঠাপুকুর উপজেলার কাফ্রিখাল ইউনিয়নে গিয়েও অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের সত্যতা পাওয়া যায়। ওই ইউনিয়নের নয়ারহাট বাজারের কাঠ ব্যবসায়ী মঞ্জুরুল ইসলাম বলেন, গত ২২ অক্টোবর তার ছোট বোনের জন্মসনদ তুলেছেন। এ জন্য তাকে দিতে হয়েছে ১৫০ টাকা।

ওই ইউনিয়নের এক গ্রাম পুলিশ জানান, এখানে ৪৫ দিন পর্যন্ত বয়সের শিশুদের ১০০ টাকা এবং তার ঊর্ধ্বে নাগরিকদের জন্য ১৫০ টাকা করে নেয়া হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কাফ্রিখাল ইউনিয়নের তথ্য ও সেবা কেন্দ্রের উদ্যোক্তা রমজান আলী মুঠোফোনে বলেন, সবার কাছ থেকে গড়ে ১০০ টাকা করে নেয়া হয়।

নির্ধারিত ফি’র চেয়ে অতিরিক্ত নিচ্ছেন কেন? এমন প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, সরকার তো আমাদের বেতন দেয় না। এটুকু সার্ভিস চার্জ না নিলে আমরা চলবো কীভাবে?

প্রসঙ্গত, সরকার নির্ধারিত ফি অনুযায়ী জন্মের ৪৫ দিন পর্যন্ত জন্মসনদ তুলতে কোনো টাকা লাগবে না। জন্মের ৪৫ দিন থেকে পাঁচ বছর পর্যন্ত ২৫ টাকা, সঙ্গে ১৫% ভ্যাট, পাঁচ বছর পরে ৫০ টাকা, সঙ্গে ১৫% ভ্যাট, জন্মতারিখ সংশোধনের জন্য আবেদন ফি ১০০ টাকা এবং ১৫% ভ্যাট, জন্মতারিখ ছাড়া নাম, বাবার নাম, মার নাম-ঠিকানা ইত্যাদি তথ্য সংশোধনের জন্য আবেদন ফি ৫০ টাকা ও ১৫% ভ্যাট, বাংলা ও ইংরেজি উভয় ভাষায় তথ্য সংশোধনের পর সনদের কপি সরবরাহ করার জন্য কোনো ফি লাগে না এবং বাংলা ও ইংরেজি ভাষায় নকল সরবরাহ করতে ৫০ টাকা ও ১৫% ভ্যাট লাগবে।

জিতু কবীর/এমএএস/এমকেএইচ