সুন্দরবনে পর্যটকদের প্রবেশে বাধা নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক খুলনা
প্রকাশিত: ০৩:০৭ পিএম, ১২ নভেম্বর ২০১৯
ফাইল ছবি

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে বিপর্যস্ত সুন্দরবনে পর্যটকদের প্রবেশের নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে বন বিভাগ। তবে আগামী ২৫ নভেম্বর থেকে ২৭ নভেম্বর পর্যন্ত তিনদিন সুন্দরবনে পর্যটন কার্যক্রম বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) বেলা ১১টার দিকে খুলনা অঞ্চলের বন সংরক্ষকের কার্যালয়ে ট্যুর অপারেটর অ্যাসোসিয়েশনের (টোয়াস) সঙ্গে বন বিভাগের মতবিনিময় সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

খুলনা অঞ্চলের বন সংরক্ষক মঈন উদ্দিন খান বলেন, সুন্দরবন ট্যুর অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন ও বন বিভাগের যৌথ মতবিনিময় সভায় সুন্দরবনে পর্যটকদের প্রবেশের সকল নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয়েছে। তবে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত সুন্দরবনে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করার জন্য ২৫ থেকে ২৭ নভেম্বর পর্যন্ত সকল ট্যুরিজম কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়েছে। এই তিন দিন বাদে ট্যুরিজম কার্যক্রম যথারীতি স্বভাবিক নিয়মে চলবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ট্যুর অপারেটর অ্যাসোসিয়েশনের আহ্বায়ক মঈনুল ইসলাম জমাদ্দার, সাবেক সভাপতি নাজমুল হাসান ডেবিট, হোটেল রয়্যাল ইন্টারন্যাশনালের মালিক ফারুক হোসেন, সংগঠনের নেতা কাজী মনজুর-উল-আলম, শাহেদী ইসলাম রকি, মাজাহারুল ইসলাম কচি, শাহেদ ইমরান, রাজিব হোসেনসহ বন বিভগের কর্মকর্তারা।

ঘূর্ণিঝড়ে সুন্দরবনে বন বিভাগের বেশ কিছু ক্যাম্প, কাঠের পন্টুন, জেটি, ওয়াকওয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। যার কারণে ১১ নভেম্বর সোমবার বিশ্বের সবচেয়ে বড় ম্যানগ্রোভ বন সুন্দরবনে পর্যটকদের প্রবেশ আপাতত বন্ধ ঘোষণা করে বন বিভাগ। কিন্তু এখন সুন্দরবনের পর্যটন মৌসুম হওয়ায় বনে প্রবেশ বন্ধ থাকলে ট্যুর অপারেটর প্রতিষ্ঠানগুলো ক্ষতির সম্মুখীন হবে এবং দেশও রাজস্ব হারাবে। যার প্রেক্ষিতে ট্যুর অপারেটর অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে সুন্দরবনে পর্যটকদের প্রবেশ বন্ধ প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়। সেই দাবির কারণে বন বিভাগ সুন্দরবনে পর্যটকদের প্রবেশের ব্যাপারে সকল নিষেধাজ্ঞা তুলে নিল।

এদিকে বনের ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণে সোমবার থেকে কাজ শুরু করেছে বন বিভাগের ৬৩টি ক্যাম্পের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

আলমগীর হান্নান/আএআর/জেআইএম