চুরির অভিযোগে প্রতিবন্ধীকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন!

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি সাভার
প্রকাশিত: ১১:৫০ পিএম, ১২ নভেম্বর ২০১৯

আশুলিয়ায় চুরির অভিযোগে সানি (১৩) নামে এক শ্রবণ প্রতিবন্ধী শিশুকে ঘরের ভেতরে আটকে রেখে মারধরসহ মধ্যযুগীয় কায়দায় মাটিতে আঁছড়ে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী শিশুটির মা সালমা বেগম আশুলিয়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে দু’জনকে আটক করেছে।

সোমবার রাতে আশুলিয়ার পলাশবাড়ি এলাকায় এ নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। আটকরা হলেন- আশুলিয়ার পলাশবাড়ি এলাকার আরব আলীর ছেলে সোহাগ (৩০) এবং আইনুদ্দিন মোল্লার ছেলে কবির মোল্লা (২৮)।

লিখিত অভিযোগ থেকে জানা যায়, সোমবার সন্ধ্যায় পলাশবাড়ি এলাকার সোহাগের নেতৃত্বে কয়েকজন যুবক শ্রবণ প্রতিবন্ধী শিশু সানির বিরুদ্ধে কবুতর চুরির মিথ্যা অভিযোগ তুলে রাস্তা থেকে ধরে নিয়ে যায়। পরে তাকে একটি ঘরের মধ্যে আটকে রেখে দফায় দফায় মারধর করে সোহাগ। একপর্যায়ে শিশুটিকে মধ্যযুগীয় কায়দায় মাটিতে আঁছড়ে ফেলে নির্যাতন করে মেরে ফেলার ভয়-ভীতি দেখানো হয়।

খবর পেয়ে প্রথমে ওই এলাকার দুই যুবক শিশু সানীকে ছাড়িয়ে আনতে গেলে তাদেরকেও মারধোর করে সোহাগ। পরে সানীর মা এলাকার লোকজন নিয়ে গিয়ে ছেলেকে উদ্ধার করেন। এ সময় সানীর সারা শরীরে আঘাত ও মারধরের চিহ্ন ফুটে উঠে।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী সানীর মা সালমা বেগম বাদী হয়ে সোমবার রাতেই নির্যাতনকারী সোহাগকে প্রধান করে অজ্ঞাতনামা ৪-৫ জনের বিরুদ্ধে আশুলিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

আশুলিয়ার থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) কামরুল হাসান বলেন, শিশু নির্যাতনের ঘটনায় লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে দুই যুবকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে। মারধরের ঘটনায় বাকি জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হবে বলেও জানান তিনি।

আল-মামুন/সাভার/এমআরএম