সাতক্ষীরা মেডিকেলের দুই ঠিকাদার কারাগারে

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি সাতক্ষীরা
প্রকাশিত: ০১:৩৬ পিএম, ১৪ নভেম্বর ২০১৯

সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সফটওয়্যার ও যন্ত্রপাতি ক্রয়ে দুর্নীতির ঘটনায় দায়ের করা দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় দুই ঠিকাদারের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। বুধবার (১৩ নভেম্বর) বিকেলে সাতক্ষীরার সিনিয়র বিশেষ জজ-১ আদালতের ভারপ্রাপ্ত বিচারক মো. শরিফুল ইসলাম এ আদেশ দেন।

কারাগারে পাঠানো আসামিরা হলেন- রাজধানীর পুরানা পল্টন এলাকার মেসার্স মার্কেন্টাইল ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের স্বত্বাধিকারী আব্দুস সাত্তার সরকার ও দিনাজপুরের ইউনিভার্সাল ট্রেড কর্পোরেশনের স্বত্বাধিকারী আসাদুর রহমান।

দুদকের আইনজীবী সাতক্ষীরা আদালতের পিপি মোস্তফা আসাদুজ্জামান দিলু জাগো নিউজকে বলেন, সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সফটওয়্যার, মেশিনারিজ ও যন্ত্রপাতি ক্রয়ের নামে ভুয়া বিল ভাউসারের মাধ্যমে যোগসাজশ করে ৬ কোটি ৬ লাখ ৯৯ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেন হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়কসহ ঠিকাদাররা। এই ঘটনায় তদন্তের পর দুদক প্রধান কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মো. ফেরদৌস রহমান বাদী হয়ে হাসপাতালের সাবেক তত্ত্বাবধায়ক ডা. শাহজাহান আলী ও চার ঠিকাদারের নামে গত ৩১ অক্টোবর দুদকের খুলনা কার্যালয়ে মামলা করেন।

তিনি জানান, মামলায় ঠিকাদার আব্দুস সাত্তার সরকার ও আসাদুর রহমান বুধবার আদালতে জামিনের আবেদন জানালে আদালত তা নামঞ্জুর করে আসামিদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। মামলার অপর তিন আসামি হাসপাতালের সাবেক তত্ত্বাবধায়ক ডা. শেখ শাহজাহান আলী, রাজধানীর সেগুনবাগিচার মেসার্স মার্কেন্টাইল ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের স্বত্বাধিকারী আহসান হাবীব, ঢাকার বেঙ্গল সাইন্টিফিক অ্যান্ড সার্জিক্যাল কোম্পানির স্বত্বাধিকারী জাহের উদ্দীন সরকার এখনও পলাতক রয়েছেন।

দুদকের মামলার বিষয়ে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সাবেক তত্ত্বাবধায়ক ডা. শেখ শাহজাহান আলী জাগো নিউজকে বলেন, ২০১৮ সালের ৪ সেপ্টেম্বর সার্ভার মেশিনটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনা হয়। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে বিল প্রদান করা হয় ১০ সেপ্টেম্বর। এছাড়া ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে বিল প্রদান করা হলেও মেশিনটি চালু না হওয়া পর্যন্ত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে সাত কোটি টাকার সিকিউরিটি মানি রেখে দেয়া হয়েছিল।

আকরামুল ইসলাম/আরএআর/জেআইএম