এমপির বিরুদ্ধে চেয়ারম্যানের সংবাদ সম্মেলন

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি সিরাজগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৬:২৯ পিএম, ১৪ নভেম্বর ২০১৯

বেসরকারি একুশে টেলিভিশনের অনুষ্ঠানে সিরাজগঞ্জ-৩ (রায়গঞ্জ-তাড়াশ) আসনের এমপি অধ্যাপক ডা. মো. আব্দুল আজিজ মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর কথা বলেছেন বলে অভিযোগ করেছেন তাড়াশ সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. বাবুল শেখ।

বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে তাড়াশ সদর ইউপি কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে এমন অভিযোগ করেন তিনি। এ সময় ইউপি সদস্য আকতারুজ্জামান, ছোলায়মান হোসেন, ভুলন চন্দ্র ও ঊষা রানী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

লিখিত বক্তব্যে বাবুল শেখ বলেন, গত ১০ নভেম্বর বেসরকারি একুশে টেলিভিশনে ‘হ্যালো লিডার’ অনুষ্ঠানে উপস্থাপক সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. মো. আব্দুল আজিজকে বলেন ‘আপনার এলাকার মানুষ মেম্বারদের টাকা দেন, চেয়ারম্যানদের ঘুষ দেন, বয়স্ক ভাতার কার্ড নিতে- এরকম অভিযোগ আপনি জানেন কি না?’ জবাবে, এমপি ডা. মো. আব্দুল আজিজ বলেন, ‘একজন চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ এসেছে, আমি তার নাম বলতে চাই না।’ এ সময় উপস্থাপক জানতে চান, ‘তাকে কি ভয় পান?’ জবাবে এমপি সাহেব বলেন, ‘বাবলু নামের একজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ এসেছে, তিনি তাড়াশ সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান।’

বাবুল শেখ বলেন, ওই অনুষ্ঠানে কয়েকজন ভুক্তভোগীর সাক্ষাৎকার দেখানো হয়েছে। সেখানে কেউই আমার নাম বলেননি। তারা রেজাউল নামে একজন মেম্বারের নাম বলেছেন। অথচ রেজাউল নামে একজনও ইউপি সদস্য তাড়াশ সদর ইউনিয়নে নেই। তাহলে আমার নাম কেন সেখানে বলা হলো?

চেয়ারম্যান বলেন, ওই অনুষ্ঠানে ভিত্তিহীন তথ্যে আমাকে হেয় করা হয়েছে। এমপি ডা. মো. আব্দুল আজিজকে বক্তব্য প্রত্যাহার করে নেয়ার অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এমপি সাহেব যেমন একজন জনপ্রতিনিধি, আমিও একজন জনপ্রতিনিধি। কাজেই আমার বিরুদ্ধে তিনি তদন্ত কমিটি গঠন করতে পারেন না। ভবিষ্যতে আমার বিরুদ্ধে এমন মিথ্যাচার থেকে বিরত থাকার অনুরোধ জানাচ্ছি’।

তিনি আরও বলেন, আরেকটি কথা বলতে চাই, দায়িত্বশীল জায়গায় থেকে যখন কারো নাম বলবেন, তখন সঠিক নামটিই বলতে হয়। আমি মো. বাবুল শেখ, বাবলু নই। অবশ্য এমপি সাহেব আমার সঠিক নাম জানার কথাও নয়। কারণ আমাকে তো রাজপথে দেখেননি। কখনো একসঙ্গে মিছিলও করা হয়নি।

বাবুল শেখ বলেন, আমি পারিবারিকভাবে এবং স্কুল জীবন থেকেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের রাজনীতি সঙ্গে সম্পৃক্ত হই। আওয়ামী লীগের চরম দুঃসময়ে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময়ে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হই। দলের দুর্দিনে সংগঠনকে সুসংগঠিত ও জোট সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন করতে গিয়ে হামলা, মামলা, নির্যাতনের শিকার হয়েছি।

নানা প্রতিকূলতার মধ্য দিয়ে মানুষের সেবা করে যাচ্ছি উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমি মানুষ, আমারও ভুলত্রুটি থাকতে পারে। তবে, জানা মতে কখনো, কোনোদিন, কোনো অন্যায় করিনি। এরপরও আমার নামে নানা ধরনের ষড়যন্ত্র, চক্রান্ত চলছে। একটি বিশেষ মহল এতে জড়িত। যারা চান না, আমি শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করি।

তিনি আরও বলেন, এছাড়া জেনে হোক, আর অজ্ঞতায় হোক নিজ দলের নেতাকর্মী, এমনকি নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরাও আমাকে নিয়ে বিভ্রান্তকর কথাবার্তা বলছেন। তাই আমি উল্লেখিত অনুষ্ঠানটি দেখে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য তাড়াশবাসীকে অনুরোধ করছি।

ইউসুফ দেওয়ান রাজু/এমএমজেড/পিআর