শেখ হাসিনা বাংলাদেশের উন্নয়নের কারিগর : অর্থমন্ত্রী

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি মির্জাপুর (টাঙ্গাইল)
প্রকাশিত: ০৯:৪৭ পিএম, ১৫ নভেম্বর ২০১৯

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, যারা মানুষের কল্যাণে কাজ করেন তারা খালি হাতে আসেন আবার খালি হাতে ফিরে যান। তেমনি একজন মানুষ দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা। তার কাজগুলো আমাদের প্রেরণার উৎস। যাদের দেশপ্রেম আছে তারা পৃথিবী থেকে চলে গেলেও কর্ম থেকে যায়।

শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) মির্জাপুরে কুমুদিনী কল্যাণ ট্রাস্ট কর্তৃক কুমুদিনী কমপ্লেক্স ভারতেশ্বরী হোমস মাঠে দানবীর রণদা প্রসাদ সাহার ১২৩তম জন্মজয়ন্তী ও কুমুদিনী ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্ট্রের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা সফল রাষ্ট্রনায়ক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের উন্নয়নের কারিগর এবং উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশের রূপকার। তিনি বাঙালি জাতিকে নতুন এক আশা দেখিয়েছেন, বাংলাদেশকে একটি উন্নত দেশে উন্নীত করার। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করা হয়েছে। যার মাধ্যমে মহান স্বাধীনতাযুদ্ধ চলাকালে বিশিষ্ট দানবীর এই রণদা প্রসাদ সাহাকে অপহরণ ও হত্যা করায় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এক ব্যক্তিকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন।

Mirzapur-1

এরপর অর্থমন্ত্রী কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজ, ভারতেশ্বরী হোমস, নার্সিং কলেজ, ইউমেন্স মেডিকেল কলেজের হোস্টেলসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান ঘুরে দেখেন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগীদের খোঁজ খবর নেন।

এর আগে মন্ত্রী বিকেল ৩টা ৫৫ মিনিটে কুমুদিনী কমপ্লেক্সে এসে পৌঁছালে ট্রাস্ট্রের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজীব প্রসাদ সাহা তাকে স্বাগত জানান। এ সময় অর্থ মন্ত্রণালয়ের সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার, একুশে পদকপ্রাপ্ত প্রতিভা মুৎসুদ্দি, কুমুদিনী ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্ট্রের পরিচালক শ্রীমতি সাহা, টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক মো. শহিদুল ইসলাম, মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আবদুল মালেক, থানার ওসি মো. সায়েদুর রহমান, কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর এম এ হালিম, সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর আব্দুল জলিল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এস এম এরশাদ/আরএআর/পিআর