সহযোগীসহ ডিবির ভুয়া দারোগা গ্রেফতার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি শেরপুর
প্রকাশিত: ০৪:২৩ পিএম, ১৯ নভেম্বর ২০১৯

গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ পরিচয়ে চাকরি, বয়স্কভাতা পাইয়ে দেয়াসহ বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি প্রদর্শন ও প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে শেরপুরে ডিবির ভুয়া দারোগাসহ তিন ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারা হলেন- নজরুল ইসলাম (৩২) ও তার সহযোগী আব্দুল কাইয়ুম (৪০) এবং নূরুন্নাহার।

নজরুল ইসলামের বাড়ি জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলার নাপিতেরচর গ্রামে। বাবার নাম নান্ডা সেখ। অপরদিকে আব্দুল কাইয়ুমের বাড়ি শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার কলসপাড় ইউনিয়নের গাগলাজানী গ্রামে। বাবার নাম মৃত করিম পাগলা।

নজরুল ইসলামকে সোমবার রাত ১১টার দিকে শেরপুর শহরের সজবরখিলা এলাকা থেকে এবং আব্দুল কাইয়ুমকে মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) দুপুর ১২টার দিকে শহরের শেখহাটি এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোখলেছুর রহমান ডিবি পুলিশের দারোগা পরিচয়দানকারী মো. নজরুল ইসলাম ও তার দুই সহযোগী আ. কাইয়ুম এবং নূরুন্নাহারকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, নজরুল ইসলাম ঢাকায় বসুন্ধরা গ্রুপে নিরাপত্তা প্রহরী হিসেবে চাকরি করতো। পরে সেই চাকরি ছেড়ে দিয়ে বাড়ি চলে আসে। সে আত্মীয়তার সুবাদে নালিতাবাড়ী উপজেলার গাগলাজানী গ্রামের আ. কাইয়ুম ও তার খালাতো বোন নূরুন্নাহারের সঙ্গে মিলে প্রতারণার সিন্ডিকেট গড়ে তোলেন। একপর্যায়ে ডিবির দারোগা সেজে নজরুল দুই সহযোগীকে নিয়ে শেরপুর সদর ও নালিতাবাড়ী উপজেলাসহ বিভিন্ন স্থানে মানুষের সঙ্গে চাকরি, বয়স্ক ভাতা পাইয়ে দেয়াসহ বিভিন্ন রকমের ভয়ভীতি প্রদর্শন ও প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নিত।

তিনি জানান, গত ১৮ সেপ্টেম্বর নালিতাবাড়ী উপজেলার মরিচপুরান গ্রামের সুমন মিয়ার স্ত্রী ফেরদৌসী বেগমকে বাসাবাড়ির বিভিন্ন সামগ্রী দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে তার কাছ থেকে সাড়ে ৯ হাজার টাকা হাতিয়ে নেন নজরুল। এ ঘটনায় গত ১৬ নভেম্বর ফেরদৌসী বেগম শেরপুর জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখায় (ডিবি) তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দেন। পরে ডিবির উপ-পরিদর্শক (এসআই) তাহেরুল ইসলাম ও মো. জুবায়ের খালিদ সঙ্গীয় ফোর্সসহ সোমবার রাত ১০টার দিকে শহরের সজবখিলা মহল্লায় অভিযান চালিয়ে মো. নজরুল ইসলামকে গ্রেফতার করে। তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে মঙ্গলবার দুপুরে প্রতারক চক্রের অপর সহযোগী আ. কাইয়ুমকে শহরের শেখহাটি মহল্লা থেকে গ্রেফতার করা হয়।

এর আগে গত ১৭ নভেম্বর প্রতারক চক্রের অপর সদস্য আ. কাইয়ুমের খালাতো বোন নূরুন্নাহার বেগমকেও গ্রেফতার করা হয়।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. বিল্লাল হোসেন জানান, বেশ কিছুদিন ধরে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে নজরুল ইসলাম ও তার সহযোগীরা নানা প্রতারণার মাধ্যমে সাধারণ মানুষের অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছিল। তার বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ থাকায় গ্রেফতার করা হয়েছে।

হাকিম বাবুল/এমএমজেড/এমএস