‘গুজবে’ কান দিয়ে ২০ কেজি করে লবণ কিনছেন তারা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নারায়ণগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৭:০০ পিএম, ১৯ নভেম্বর ২০১৯

‘গুজব’ ছড়িয়ে পড়ায় নারায়ণগঞ্জের পাইকারি বাজার নিতাইগঞ্জে লবণ বিক্রির হিড়িক পড়েছে। ‘গুজবে’ কান দিয়ে দোকানগুলোতে ভিড় করে অতিরিক্ত দামে লবণ কিনছে সবাই। অনেকেই ১৫-২০ কেজি করে লবণ কিনে নিচ্ছেন। এরই মধ্যে অনেক দোকানে লবণ শেষ হয়ে গেছে। কেউ কেউ বাড়তি দাম দিয়েও লবণ পাচ্ছেন না।

তবে দোকানিরা বললেন, লবণের দাম বাড়ার বিষয়টি আমরা জানি না। আগের দামেই লবণ বিক্রি করছি আমরা। তবে ক্রেতাদের কেউ কেউ বেশি লবণ নিতে চাওয়ায় বেশি দাম চাওয়া হয়েছে। কিন্তু মোকামে লবণের দাম বাড়েনি।

iodine

স্থানীয় সূত্র জানায়, মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) মঙ্গলবার দুপুর থেকে বাজারের বিভিন্ন দোকানে ভিড় করতে থাকে মানুষ। পাইকারি ও খুচরা দোকানগুলোতে লবণ কেনার জন্য ভিড় করে সবাই। যাদের এক কেজি দুই কেজি লবণ দরকার তারাও ১৫-২০ কেজি করে কিনে নিচ্ছেন। সুযোগ বুঝে প্রতি কেজি লবণে ২০-৩০ টাকা বেশি রাখছেন দোকানিরা।

এরই মধ্যে ‘লবণের দাম বেড়েছে’ ফেসবুকে এমন ‘গুজব’ ছড়িয়ে দেয়ায় শহরের নিতাইগঞ্জ থেকে আবদুল করিম নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

iodine

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান বলেন, নিতাইগঞ্জে দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে লবণের দাম বেড়ে যাবে প্রচারণা চালান আবদুল করিম। একই সঙ্গে ‘লবণের দাম বাড়বে’ ফেসবুকে এমন স্ট্যাটাস দিয়ে গুজব ছড়িয়ে দেন তিনি। এজন্য তাকে আটক করা হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা বিভিন্ন বাজারে খোঁজখবর নিয়ে জানতে পেরেছি কোথাও লবণের দাম বাড়েনি। পাইকারি বাজারে লবণের সংকট নেই। এরপরও ‘গুজবে’ কান দিয়ে দোকানে দোকানে লবণ কিনতে ভিড় জমিয়েছে মানুষ। লবণ নিয়ে কেউ গুজব ছড়িয়ে অস্থিরতা সৃষ্টি করলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

iodine

নিতাইগঞ্জের দোকানদার বাবু মিয়া বলেন, লবণ সংকটের ‘গুজব’ ফেসবুকে ছড়ানো হয়েছে। কিন্তু বাজারে লবণের সংকট নেই। ‘গুজব’ ছড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে দোকানে দোকানে লাইন লেগে যায় মানুষের। সেই সঙ্গে লবণের পাইকারি দোকানেও ভিড় জমে খুচরা ব্যবসায়ীদের।

iodine

আড়াইহাজার গোপলদী এলাকা থেকে আসা আবু হানিফ বলেন, লবণ সংকটের খবর ফেসবুকে দেখেছি। কিন্তু বাজারে এসে জানলাম বিষয়টি ‘গুজব’। লবণের সংকট ও দাম বাড়ার সম্ভাবনা নেই। বাজারে পুলিশের একটি টিম টহল দিচ্ছে।

মো. শাহাদাত হোসেন/এএম/জেআইএম