লবণের দাম স্বাভাবিক, হুজুগে ক্রেতাদের মাথায় হাত

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক সিলেট
প্রকাশিত: ০৭:১৭ পিএম, ১৯ নভেম্বর ২০১৯

সিলেটে লবণ নিয়ে লঙ্কাকাণ্ড ঘটেছে সোমবার (১৮ নভেম্বর) পুরোদিন। এদিন সকাল থেকে একটি অসাধু চক্র গুজব ছড়িয়ে লবণের দাম বাড়িয়ে দেয়। সেই সঙ্গে গুজবে কান দিয়ে বিভ্রান্ত হয়ে বেশি দামে লবণ কিনে প্রতারিত হয়েছেন ক্রেতারা। তবে বর্তমানে লবণের বাজার স্বাভাবিক।

মঙ্গলবার (১৮ নভেম্বর) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত সিলেটের বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা যায়, লবণের বাজার স্বাভাবিক রয়েছে। লবণের পর্যাপ্ত সরবরাহ দিয়ে নির্ধারিত দাম নিচ্ছেন কোম্পানির প্রতিনিধিরা।

স্থানীয় সূত্র জানায়, সিলেটের বিভিন্ন স্থানে সোমবার সন্ধ্যা থেকে লবণের দাম বাড়িয়ে দেয় একশ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ীরা। ৩০-৩৫ টাকা কেজির লবণ ১০০ টাকায় বিক্রি করে তারা। লবণ সংকটের গুজবে বিভ্রান্ত হয়ে অনেকেই বাড়তি দামে লবণ কিনে নিয়েছেন। কিন্তু দাম না বাড়ায় এখন তাদের মাথায় হাত।

এর আগে লবণ নিয়ে গুজব প্রকট আকার ধারণ করলে সোমবার রাতেই বিভিন্ন দোকানে অভিযান চালায় প্রশাসন। অভিযানে কয়েকটি দোকানে জরিমানা ও লবণ জব্দ করা হয়। প্রশাসনের কঠোর পদক্ষেপে মঙ্গলবার সকাল থেকে স্বাভাবিক হয় লবণের বাজার।

কালিঘাটের পাইকারি দোকান জান্নাত স্টোরের মালিক মো. মোশারফ হোসেন বলেন, বাজারে লবণ সরবরাহে কোনো ঘাটতি নেই। পর্যাপ্ত সরবরাহ আছে। লবণের কোনো সংকট নেই। এমনকি লবণের দামও এখন পর্যন্ত কোনো কোম্পানি বাড়ায়নি। বরং ইফাদ লবণ বস্তায় ১০ টাকা করে কমে গেছে।

খুচরা দোকান আরিফ ট্রেডার্সের মামুন মিয়া বলেন, সোমবার রাতে হঠাৎ করে লবণের চাহিদা বেড়ে যায়। এই সুযোগে কিছু কিছু দোকান বাড়তি দামে লবণ বিক্রি করে। তবে কোনো কোম্পানি লবণের দাম বাড়ায়নি। সবগুলোর দাম স্বাভাবিক রয়েছে। এজন্য আগের দামেই লবণ বিক্রি করছি আমরা।

এএম/এমএস