‘আমার কর্মীর গায়ে আঁচড় লাগলে এক ঘণ্টা কেউ ঘুমাতে পারবে না’

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নারায়ণগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৮:৫২ এএম, ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান বলেছেন, আমার জীবন থাকতে আমার কর্মীর গায়ে যদি একটা আঁচড় লাগে তাহলে নারায়ণগঞ্জে এক ঘণ্টা কেউ আরামে ঘুমাতে পারবে না। শামীম ওসমান থাকতে নারায়ণগঞ্জে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের ওপর আঘাত করবে আর তাতে নারায়ণগঞ্জ শান্ত থাকবে এটা যদি কেউ মনে করে তার মতো বোকার রাজ্যে আর কেউ বাস করে না।

তিনি বলেন, আমি আওয়ামী লীগের একজন সাধারণ কর্মী। আমার কথা কেউ হালকা করে নিবেন না। আমি ডাক দিলে তখন সবাই এগিয়ে আসবে। তখন নারায়ণগঞ্জের মাটিতে শুধু মাথা দেখা যাবে। সুতরাং ওই খেলা খেলতে আসবেন না। অনেক ধৈর্য ধরেছি। সামনে আর ধৈর্য ধরবো না।

শনিবার (৭ ডিসেম্বর) ফতুল্লা স্টেডিয়াম সংলগ্ন নাসিম ওসমান মেমোরিয়াল পার্কে (নম পার্ক) ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

২০১৮ সালে নারায়ণগঞ্জ শহরে হকার ইস্যু নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীসহ অনেকে আহত হয়েছিলেন। ওই ঘটনার দীর্ঘ ২২ মাস পর মেয়র আইভীকে হত্যার উদ্দেশে হামলার অভিযোগ এনে গত বুধবার (০৪ ডিসেম্বর) শামীম ওসমানের অনুসারী আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। এ বিষয়ে নেতাকর্মীদের আশ্বস্ত করতেই শামীম ওসমান এ ধরনের বক্তব্য দেন।

শামীম ওসমান বলেন, ২০১৮ সালের ১৬ জানুয়ারি নগরের বঙ্গবন্ধু সড়কে হকারদের সঙ্গে নাসিক মেয়র আইভী ও তার অনুসারীদের সংঘর্ষ হয়। সেখানে মামলায় আমাকে ওই ঘটনার ইন্ধনদাতা উল্লেখ করে দলেরই ৯ জন নেতার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। সরকারি দল করে আইভী স্পষ্টভাবে সরকারেরই বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে।

তিনি বলেন, গত বুধবার নারায়ণগঞ্জের একটি ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে ওই মামলার পর দলের নেতাকর্মীরা আমাকে অনুরোধ করে বলে- ভাই আপনি কয়েকদিনের জন্য দেশের বাইরে চলে যান। আমরা দেখাতে চাই নারায়ণগঞ্জের রাজপথ কাদের দখলে থাকে। শেখ হাসিনার কর্মীদের নাকি খন্দকার মোশতাকের অনুসারীদের। নেতাকর্মীদের ভাষা বুঝতে পেরেই আমি সম্মেলনে এসেছি কিছু কথা বলতে।

Narayanganj

শামীম ওসমান বলেন, আজকে প্রিয়া সাহারা বিদেশের মাটিতে গিয়ে দেশের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছে। আর নারায়ণগঞ্জে আমাদের দলের মেয়র দলের পরীক্ষিত নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা করে প্রিয়া সাহাদের ভূমিকায় অবর্তীণ হচ্ছে।

তিনি বলেন, যেহেতু আইভীর সঙ্গে হকারদের সংঘর্ষের ঘটনায় আমাকে ইন্ধনদাতা বলা হচ্ছে তাই পুলিশ প্রশাসনের কাছে এমপি হিসেবে নয় আসামি হিসেবে অনুরোধ করে বলছি; মামলাটির তদন্ত করেন। তদন্ত করলেই সেদিনের ঘটনার প্রকৃত সত্য বেরিয়ে আসবে।

শামীম ওসমান বলেন, বুয়েটে আবরার হত্যার ঘটনা যদি সিসিটিভির ভিডিও ফুটেজ থেকে সত্য বেরিয়ে আসতে পারে তাহলে নারায়ণগঞ্জে সেদিনের সংঘর্ষের ঘটনারও ভিডিও ফুটেজ রয়েছে। তা দেখলেই সবকিছু স্পষ্ট হয়ে যাবে। সেদিন সংঘর্ষের পর ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম শুধু দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের অনুরোধে। ভাগ্য ভালো যে মেয়র তার মামলায় উল্লেখ করেনি যে; ওবায়দুল কাদেরই ছিল সেই ঘটনার ইন্ধনদাতা।

ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম সাইফউল্লাহ বাদলের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শওকত আলীর পরিচালনায় সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই। এতে প্রধান বক্তা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহিদ মো: বাদল।

সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি গোলাম রসুল, ইকবাল পারভেজ, ডা. আবু জাফর বিরু, সাংগঠনিক সম্পাদক সুন্দর আলী, মীর সোহেল আলী, দফতরর সম্পাদক এস এম রাসেল, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহা, সহসভাপতি বাবু চন্দন শীল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ নিজাম, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল প্রমুখ।

শাহাদাত হোসেন/আরএআর/এমএস