আতঙ্কে দরজা-জানালা বন্ধ করে বার্ষিক পরীক্ষা দিচ্ছে শিশুরা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি কুড়িগ্রাম
প্রকাশিত: ০৭:৫৩ পিএম, ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯

মৌমাছি বাসা বেঁধেছে একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। একটি-দুটি নয়, একেবারে ২২টি চাক দিয়েছে বিদ্যালয়টির তিন দিকের কার্নিসে। বাদ যায়নি সিঁড়ির ছাদও। মৌমাছির হুল ফোটানোর আতঙ্কে শঙ্কিত এখন বিদ্যালয়টির শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

মৌমাছির আক্রমণে ইতোমধ্যে সাত-আটজন শিক্ষার্থী শিকার হয়েছে। ভয়ে অনেক শিক্ষার্থী বিদ্যালয়ে আসাও ছেড়ে দিয়েছে। মৌমাছির আক্রমণ থেকে বাঁচতে দরজা জানালা বন্ধ করে বার্ষিক পরীক্ষা দিচ্ছে শিশু শিক্ষার্থীরা।

কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার উত্তর কচাকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চিত্র এটি। প্রত্যন্ত চরাঞ্চলের এ বিদ্যালয়টিতে একমাস আগে হঠাৎ করে একটি মৌমাছির চাক বসে। দিনের পর দিন বাড়তে থাকে চাকের সংখ্যা।

বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা জানায়, মাঝে মধ্যেই মৌমাছি উড়ে এসে সারা শরীরে হুল ফুটায়। তাই তাদেরকে সব সময় ভয়ে থাকতে হয়।

Kurigram-Bee-news

শিক্ষকরা জানায়, চুপচাপ রুমে ঢুকে দরজা জানালা বন্ধ করে দিয়ে স্কুলে কার্যক্রম চালাতে হচ্ছে। এছাড়া মৌমাছির বেশি উড়লে ধোঁয়া দিয়ে চলমান বার্ষিক পরীক্ষা নিতে হচ্ছে। সব মিলিয়ে আতঙ্কে থাকতে হয় তাদেরকে।

বিদ্যালয়টির সহ-সভাপতি তাইজুল ইসলাম জানান, যখন কম ছিল তখন স্থানীয়ভাবে মৌমাছি তাড়ানোর চেষ্টা করেও লাভ হয়নি। এখন শিক্ষক শিক্ষার্থীদের সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে।

নাজমুল/এমএএস/জেআইএম