কেয়ারটেকার ও বাড়ির মালিকের পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি পঞ্চগড়
প্রকাশিত: ০৯:৪১ পিএম, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯

পঞ্চগড়ে বাড়িসহ জমি দখলকে কেন্দ্র করে দুটি পক্ষ পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন করেছে। রোববার দুপুরে জেলা শহরের ধাক্কামারা এলাকার জাফরিন জাকিয়া পঞ্চগড় প্রেসক্লাব হলরুমে সংবাদ সম্মেলন করে বাবার কেয়ারটেকার মো. জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে পৈত্রিক বাড়িসহ জমি দখলের অভিযোগ করেন। এর আগে কেয়ারটেকার জসিম উদ্দিনও একই স্থানে সংবাদ সম্মেলন করে নিজেকে নিরিহ এবং নিরাপরাধ দাবি করেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জাফরিন জাকিয়া বলেন, ২০১৪ সালে আমার বাবা আমিরুজ্জামান, মা উম্মে তাহেরা খাতুন ও বড় বোন রওনক জাহান মারা যান। আমাদের কোনো ভাই নেই। বর্তমানে আমরা এতিম দুই বোন বাবার সম্পত্তির একটি অংশের শরিক। আমরা পরিবার নিয়ে জেলা শহরের আরেক বাড়িতে থাকি। বাবা কেয়ারটেকার হিসেবে জসিম উদ্দিনকে বাড়িসহ জমি দেখাশুনার দায়িত্ব দিয়েছিলেন। কিন্তু তিনি মারা যাওয়ার পর আমরা পৈত্রিক বাড়ি সম্পত্তিতে গেলে কেয়ারটেকার জসিমউদ্দিন ও সন্তানরা আমাদের নানাভাবে হুমকি দেন এবং মারধর করেন। বাবার ৩২ একর জমির মধ্যে ভাই না থাকায় ১২ একর চাচা ও ফুফুরা পাবেন। বাকি ২০ একর আমরা পাবো। কিন্তু জসিম আমাদের সব জমি দখল করে রেখেছে। যাকে আমার বাবা আশ্রয় দিয়েছেন, চাকরি দিয়েছেন, তিনিই আজ আমাদের আশ্রয় কেড়ে নিচ্ছেন।

এ নিয়ে একাধিকবার থানায় অভিযোগ দেয়া হয়েছে, সালিশ বৈঠক হয়েছে, আদালতে মামলাও করা হয়েছে। কিন্তু এর কোনো প্রতিকার হয়নি। আমরা কেন আমাদের বাড়িতে যেতে পারবো না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিচার চাই।

এর আগে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে জসিম উদ্দিন নিজেকে নিরিহ এবং নিরপরাধ দাবি করে বলেন, দুইভাই বদিউজ্জামান ও আমিরুজ্জামানের বাড়িসহ জমিজমা আমি দেখাশুনা করতাম। তারা জমিসহ বাড়িটি আমাকে ১৯৯৭ সালে মৌখিকভাবে দান করেছেন। এছাড়া আমিরুজ্জামানের স্ত্রী ও ছেলে না থাকায় অন্য শরীকদের কাছে আমি ৩ একর ৭৬ শতক জমি আমি কিনে নিয়েছি। এ বাড়ির মধ্যে খাস জমিও রয়েছে। আমি তাদের সম্পত্তি দখল করিনি। বরং তারাই আমার এই কেনা জমি তাদের বলে দাবি করছেন। গত ১১ ডিসেম্বর তাদের ওপর জাফরিন জাকিয়া খাতুন তার স্বামী ও ভাড়াটে লোকজন তাদের ওপর আক্রমণ চালায়।

সফিকুল আলম/এমএএস/এমএস