মজুরি-স্লিপ পেয়ে মোনাজাত করলেন খুলনার পাটকল শ্রমিকরা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক খুলনা
প্রকাশিত: ০৭:০৩ পিএম, ১৬ জানুয়ারি ২০২০

দীর্ঘ আন্দোলনের পর নতুন মজুরি কমিশনের মজুরি-স্লিপ হাতে পেয়ে খুশিতে আত্মহারা হয়ে উঠেছেন খুলনার রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলের শ্রমিকরা। মজুরি-স্লিপ হাতে পাওয়ার পর থেকেই আনন্দের জোয়ার বাইছে খুলনার শিল্পাঞ্চলে।

বৃহস্পতিবার (১৬ জানুয়ারি) দুপুরে মজুরি-স্লিপ হাতে পেয়ে শ্রমিকরা একত্রিত হয়ে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাতেও অংশ নিয়েছে। মজুরি-স্লিপ হাতে পাওয়ার পরপরই তারা ছুটেছেন টাকা তোলার জন্য।

প্লাটিনাম জুট মিলের মহাব্যবস্থাপক গোলাম রব্বানী মিলের ব্যবস্থাপক ও উপ-ব্যবস্থাপকদের সঙ্গে নিয়ে শ্রমিকদের মাঝে আনুষ্ঠানিকভাবে মজুরি-স্লিপ বিতরণ করেন। এসময় মিলের শ্রমিক নেতারাও উপস্থিত ছিলেন।

প্লাটিনাম জুট মিল সিবিএ’র সভাপতি সাহানা শারমিন বলেন, দীর্ঘ আন্দোলন সংগ্রামের পর অবশেষে খুলনাসহ সারাদেশের রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল শ্রমিকরা তাদের কাঙ্খিত মজরি স্কেল-২০১৫ এর মজুরি স্লিপ পেয়েছেন। নতুন এ মজুরি কমিশন বাস্তবায়নের ফলে একজন শ্রমিক পূর্বে যেখানে দুই হাজার ২শ টাকা সাপ্তাহিক মজুরি পেতেন এখন সেখানে চার হাজার ৩শ টাকা মজুরি পাবেন। আর যে শ্রমিক আগে দুই হাজার ৩শ টাকা মজুরি পেতেন সেই শ্রমিক এখন চার হাজার ৪শ টাকার উপরে মজুরি পাবেন। অর্থাৎ এখন প্রায় দ্বিগুণ মজুরি পাবেন তারা।

khulna-jute-mills-(1)

তবে এখনও প্রতিটি মিলে ৬ থেকে ৮ সপ্তাহ করে মজুরি পাওনা রয়েছে শ্রমিকদের। আর ১১ দফা আন্দোলনের বাকি ১০ দফা পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়ন করবে সরকার এমন প্রত্যাশা শ্রমিকদের।

পাটকলগুলোর সূত্র জানায়, মজুরি স্কেল-২০১৫ অনুযায়ী পাটকল শ্রমিকদের মজুরি বেড়েছে প্রায় দ্বিগুন। খুলনা-যশোর অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ত ক্রিসেন্ট, প্লাটিনাম, খালিশপুর, দৌলতপুর, স্টার, আলীম, ইস্টার্ণ, জেজেআই ও কার্পেটিং ৯টি পাটকলে নতুন মজুরি স্কেল অনুযায়ী ৪ জানুয়ারি থেকে ৯ জানুয়ারি পর্যন্ত এক সপ্তাহে প্রায় ৬ কোটি ৮৫ লাখ ৮১ হাজার টাকার মজুরি স্লিপ প্রদান করা হয়েছে।

বিজেএমসির খুলনা আঞ্চলিক সমন্বয়কারী মো. বনিজ উদ্দিন মিঞা জানান, কর্পোরেশনের নির্দেশনা অনুযায়ী খুলনা অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ত ৯টি পাটকলের শ্রমিকদের বৃহস্পতিবার মজুরির প্রথম স্লিপ প্রদান করা হয়েছে। নতুন মজুরি স্কেল অনুযায়ী শ্রমিকদের ৮০ থেকে ৮৫ শতাংশ মজুরি বাড়বে।

আলমগীর হান্নান/এমএএস/এমকেএইচ