কালভার্ট নির্মাণে রডের বদলে বাঁশ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ময়মনসিংহ
প্রকাশিত: ১০:০৯ পিএম, ০৪ জুলাই ২০২০

ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া উপজেলায় স্থানীয় সরকার সহায়তা প্রকল্পের (এলজিএসপি) আওতায় নির্মিত একটি কালভার্টে রডের বদলে বাঁশ দেয়া হয়েছে। স্থানীয় ইউপি সদস্য মোহাম্মাদ আলীর তত্ত্বাবধানে কালভার্টটি নির্মিত হচ্ছে। মূলত তিনিই কালভার্টে রডের বদলে বাঁশ দিয়েছেন।

শনিবার (০৪ জুলাই) উপজেলার আছিম পাটুলী ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের দুটি কালভার্ট নির্মাণকাজে রডের বদলে বাঁশের ব্যবহার দেখা যায়। খবর পেয়ে ময়মনসিংহের স্থানীয় সরকার সহায়তা প্রকল্পের উপপরিচালক একেএম গালিব ও ফুলবাড়িয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফুল সিদ্দিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। কালভার্ট নির্মাণকাজে রডের বদলে বাঁশের ব্যবহার সরেজমিনে দেখেছেন তারা।

ইউনিয়ন পরিষদ সূত্রে জানা যায়, ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বরাদ্দ থেকে আছিম পাটুলী ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের দুটি প্রকল্পে সাড়ে তিন লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। দুই লাখ টাকা বরাদ্দে ইউপি সদস্য মোহাম্মদ আলীকে প্রকল্প কমিটির সভাপতি এবং দেড় লাখ টাকা বরাদ্দের প্রকল্পে ইউপি সদস্য রাশিদাকে সভাপতি করা হয়। রাশিদার প্রকল্পের কাজ প্রায় শেষ।

সেখানে রড কিংবা বাঁশ কিছুই ব্যবহার করা হয়নি। মোহাম্মদ আলীর প্রকল্পে রডের বদলে বাঁশ ব্যবহার করে শুক্রবার (০৩ জুলাই) ঢালাই শেষ করা হয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই ছবি ভাইরাল হলে মেম্বারের দুই ছেলে লিটন ও রিপন কালভার্টের ঢালাই তুলে বাঁশের বেড়া বাড়িতে নিয়ে রাখেন।

ইউপি সচিব জানিয়েছেন, প্রকল্পের কাজ চলাকালীন এলজিইডির তদারকি কর্মকর্তা ও আমার উপস্থিত থাকার কথা ছিল। কিন্তু মেম্বার নাকি বন্ধের দিন ঢালাই করেছেন, যা মোটেও ঠিক করেননি তিন।

পরিদর্শন শেষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফুল সিদ্দিক বলেন, প্রাথমিক তদন্তে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। দোষীদের বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে তা পরে জানানো হবে।

ময়মনসিংহের স্থানীয় সরকার সহায়তা প্রকল্পের উপপরিচালক একেএম গালিব খাঁন বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এএম/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]