জামাত খানকে নিয়ে অপপ্রচার, তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক রাজশাহী
প্রকাশিত: ০৮:১৯ পিএম, ১১ জুলাই ২০২০
ছবি : জামাত খান

রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জামাত খানের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের অভিযোগ পাওয়া গেছে। জামাত খানকে ‘চাঁদাবাজ, রাজাকারের সন্তান ও চিহ্নিত সন্ত্রাসী’ উল্লেখ করে নগরের বিভিন্ন স্থানে লিফলেট ছড়িয়ে দিয়েছে একটি চক্র। লিফলেটের একই কপি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকেও প্রচার করা হয়েছে।

এসব লিফলেটের কপি নগরীর বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি দফতরে পাঠিয়ে তার সুনাম ক্ষুণ্ন করার চেষ্টা করা হচ্ছে। এ নিয়ে জামাত খান তথ্যপ্রযুক্তি আইনে বোয়ালিয়া থানায় মামলা করেছেন। এছাড়া অপপ্রচারের বিরুদ্ধে শিগগিরই মাঠে নামার প্রস্তুতি নিচ্ছে সামাজিক সংগঠন রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদ।

মামলার এজাহারে জামাত খান উল্লেখ করেন, তিনি রাজশাহীর উন্নয়ন সংগ্রামে নিয়মিত কাজ করে চলেছেন। একই সঙ্গে দুর্নীতির বিরুদ্ধে ও মানুষের মৌলিক দাবি পূরণে কাজ করছেন তিনি। এ কারণে একটি পক্ষ তাকে এসব থেকে দমাতে নানাভাবে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে।

এর আগেও তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হয়েছে উল্লেখ করে জামাত খান বলেন, মো. হানিফ চৌধুরী (MD Hanif Chowdhury) নামের ফেসবুক আইডি থেকে আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে।

ফেসবুকের বাইরে লিফলেট প্রকাশ করে তা নগরীর বিভিন্ন স্থানে টানানো হয়েছে। এতে সামাজিক সংগঠনের নেতা হিসেবে জামাত খান ও তার পরিবার সম্পর্কে মিথ্যা, বনোয়াট ও কল্পনাপ্রসূত তথ্য দিয়ে জনমনে বিভ্রান্তি ছড়ানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।

জামাত খান বলেন, রাজশাহীর একটি দুষ্টচক্র অসৎ উদ্দেশ্যে ধান্দাবাজি করে চলেছে। এসবের বিরুদ্ধে মাঠে শক্ত আওয়াজ তুলেছি। তাই ওই চক্রটি আমার ও পরিবারের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। জনৈক মো. হানিফ চৌধুরী তার ফেসবুক আইডি থেকে আমার সম্পর্কে মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্য প্রচার করছেন। আমাকে অশিক্ষিত, রাজাকারের ছেলে, ফ্রিডম পার্টির ভাই, জামাত খাঁ উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়া আমাকে চিহ্নিত সন্ত্রাসী হিসেবেও উল্লেখ করা হয়েছে।

শুধু তাই নয়, জামাত খানের বাবার বিরুদ্ধেও নানা অপপ্রচার করা হচ্ছে ওই ফেসবুক আইডি থেকে। জামাত খানের বাবা জহির উদ্দিন খান জীবদ্দশায় সংগীতাঙ্গনে খ্যাতিমান লোক ছিলেন। অথচ তাকে এখন রাজাকার উল্লেখ করে অপপ্রচার চালাচ্ছে ওই চক্রটি।

জামাত খান বলেন, এসব ষড়যন্ত্র মিথ্যা এবং অপপ্রচার। এতে আমি ও আমার পরিবার সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন ও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি। ফেসবুক প্রচারিত তথ্যগুলো ষড়যন্ত্রমূলক। আমাকে সমাজে শুধুমাত্র মানসিকভাবে হয়রানির জন্য দীর্ঘদিন ধরে ওই চক্রটি এসব করে চলেছে। অবিলম্বে ফেসবুক আইডিধারী মো. হানিফ চৌধুরীকে গ্রেফতার ও তার সহযোগীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানাই।

প্রসঙ্গত, জামাত খান রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক। তার হাত ধরে ১৯৯৭ সালে রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদ গঠিত হয়। সংগঠনের ব্যানারে উত্তর রাজশাহী সেচ প্রকল্প, নদী ভাঙন থেকে রাজশাহী নগরকে রক্ষা, গ্যাস সরবরাহ, রাজশাহী-ঢাকা সরাসরি ট্রেন সার্ভিস, চিকিৎসাসেবা নিশ্চিতের দাবিতে প্রতিষ্ঠার পর থেকে আন্দোলন সংগ্রাম করে আসছেন। পাশাপাশি মানুষের মৌলিক অধিকার আন্দোলনেও সোচ্চার রয়েছেন জামাত খান।

জামাত খান বলেন, এ বিষয়ে ইতোমধ্যে রাজশাহী নগরীর বোয়ালিয়া থানায় তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা করা হয়েছে। সংগঠনের সিনিয়র আইনজীবীদের পরামর্শে ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে মানহানিসহ অপপ্রচারের মামলার পাশাপাশি রাজশাহীবাসীর সহযোগিতায় আন্দোলনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। রাজশাহীতে একটি সিন্ডিকেট তৈরি হয়েছে। তারা বিভিন্ন দফতর থেকে সুবিধা নেয়। সুবিধা করতে না পারলে কথিত আন্দোলনের নামে নানা কর্মসূচি পালন করে। ওই চক্রটিই আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচারে লিপ্ত। অবিলম্বে সিন্ডিকেটের হোতাদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে হবে। অন্যথায় বিগত সময়ের মতো ওই সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

ফেরদৌস সিদ্দিকী/এএম/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]