৫ দিন ধরে প্রেমিকের বাড়িতে অনশনে কলেজছাত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বরিশাল
প্রকাশিত: ০৮:৫৭ পিএম, ১০ আগস্ট ২০২০
ফাইল ছবি

বরিশালের উজিরপুর উপজেলায় বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে পাঁচদিন ধরে অনশন করছেন এক কলেজছাত্রী (২০)। উপজেলার জল্লা ইউনিয়নের কারফা গ্রামের প্রেমিক পলাশ রায়ের (২৩) বাড়িতে অবস্থান নিয়েছেন ওই কলেজছাত্রী।

স্থানীয়রা জানান, জল্লা ইউনিয়নের কারফা গ্রামের রবি রায়ের ছেলে পলাশ রায়ের সঙ্গে পার্শ্ববর্তী আগৈলঝাড়া উপজেলার বাসিন্দা ও ডিগ্রি প্রথম বর্ষে পড়ুয়া ওই ছাত্রীর দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। পলাশ রায় বিয়ের প্রলোভনে ওই ছাত্রীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক তৈরি করেন। এরপর মেয়েটি বিয়ের জন্য চাপ সৃষ্টি করেন। কিন্তু পলাশ রায় বিয়েতে রাজি হচ্ছিলেন না। বাধ্য হয়ে মেয়েটি গত ৫ আগস্ট পলাশ রায়ের বাড়িতে যান। পলাশের পরিবারের লোকজন বিষয়টি মেনে না নেয়ায় মেয়েটি সেখানে অনশন শুরু করেছেন।

ওই কলেজছাত্রী অভিযোগ করেন, পলাশের সঙ্গে তার মুঠোফোনে পরিচয় হয়। নিয়মিত কথা বলার একপর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। পলাশ বিয়ের কথা বলে তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করে। পরে পলাশ বিয়ে নিয়ে টালবাহানা শুরু করে এবং বিষয়টি অভিভাবকদের জানাতে অস্বীকৃতি জানায়। কোনো উপায় না পেয়ে গত পাঁচদিন ধরে বিয়ের দাবিতে আমরণ অনশন শুরু করেছেন।

তিনি বলেন, স্থানীয় লোকজন বিষয়টি জানতে পেরে সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন। তারা পলাশের পরিবারকে বিয়ের জন্য অনুরোধ করছেন। তবে পলাশের পরিবারের লোকজন রাজি হচ্ছে না। আমাকে বাড়ি থেকে বের করে দিতে পলাশের আত্মীয়-স্বজন নির্যাতন করছে। পলাশ ও আমার সম্পর্কের বিষয়টি আমাদের এলাকায় জানাজানি হয়ে গেছে। বাড়ি ফেরার পথ বন্ধ হয়ে গেছে। এ অবস্থায় বিয়ে না হলে আত্মহত্যা ছাড়া কোনো পথ নেই।

এদিকে প্রেমিক পলাশ রায় দাবি করেন, এলাকাবাসীর অনুরোধে রোববার (৯ আগস্ট) তিনি মেয়েটিকে কোর্ট ম্যারেজ করেছেন। তবে বিয়ের কাগজপত্র দেখতে চাইলে তিনি দেখাতে পারেননি।

জল্লা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বেবী রানী জানান, বিষয়টি তিনি এখন জানলেন। উভয় পক্ষের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করবেন।

উজিরপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউল আহসান জানান, এ বিষয়ে কেউ থানায় কোনো অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সাইফ আমীন/আরএআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]