ভারতের ভ্যাকসিন পেতে আলাপ করা হবে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক সিলেট
প্রকাশিত: ০১:৩৫ পিএম, ১৯ আগস্ট ২০২০

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, ভারত আমাদের নিকটতম প্রতিবেশী দেশ। তাদের সঙ্গে আমাদের ঐতিহাসিক সম্পর্ক রয়েছে। আমাদের স্বাধীনতার জন্য তারাও রক্ত দিয়েছে। ভারতে করোনার ভ্যাকসিন তৈরির সম্ভাবনা রয়েছে। করোনার সেই ভ্যাকসিন আমরা কীভাবে পাব এ বিষেয়ে ভারতের পররাষ্ট্র সচিবের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা হবে।

বুধবার (১৯ আগস্ট) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সিলেট জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, খুবই খুশির খবর যে ভারতের পররাষ্ট্র সচিব আমাদের দেশে সফরে এসেছেন। তাঁর সঙ্গে অনেক বিষয় নিয়েই আলাপ-আলোচনা হবে।

করোনাকালে প্রবাসীদের নানা সমস্যা প্রসঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, করোনাকালীন সঙ্কটে খুব বেশি বাধ্য না হলে প্রবাসীরা যেন দেশে না ফেরেন। করোনার কারণে বিদেশে অনেক প্রবাসী সমস্যায় রয়েছেন। তবে আপদকালীন সময় চলে যাবে। তখন প্রবাসীদের অবস্থা এতো খারাপ থাকবে না। ভিসার মেয়াদ নিয়ে তাদের চিন্তার কোনো কারণ নেই। বিনা খরচে ভিসা অটোমেটিক রিনিউ হবে।

দেশে আটকাপড়া প্রবাসীদের ফিরে যাওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, করোনা সঙ্কট কিছুটা কেটে যাওয়ায় আটকাপড়া প্রবাসীরা ফিরতে শুরু করেছেন। তবে কয়েকটি দেশ নতুন নতুন আইন জারি করে কিছুটা সমস্যা করছে। এর মধ্যে সংযুক্ত আরব আমিরাত সরকার নতুন আইন করেছে। শুধু ভিসার মেয়াদ থাকলেই প্রবাসীরা ফিরে যেতে পারবেন না। এজন্য প্রয়োজন হবে কফিলের গ্রিন সিগন্যাল। নতুন এই আইনের কারণে কিছু প্রবাসীকে ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে। ভিসার মেয়াদ থাকার পরও তারা সেদেশে ফিরে যেতে পারছেন না। তবে এই সমস্যা সমাধানে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে কাজ চলছে।

এর আগে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল উদ্বোধন এবং ১৫ আগস্টের সকল শহীদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এরপর বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

ছামির মাহমুদ/আরএআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]