সিলেট সিটিকে আটগুণ বড় করা দরকার : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক সিলেট
প্রকাশিত: ০৭:৫৬ পিএম, ১৯ আগস্ট ২০২০

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, সিলেট সিটি করপোরেশনের আয়তন দ্বিগুণ বাড়িয়ে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। এই সিটিকে আটগুণ বড় করা দরকার। সিটি করপোরেশন বড় হলে এর বাজেটও বড় হবে। উন্নয়নের জন্য মেয়র সাহেবের হাতে বেশি টাকা থাকবে। এটা একটা বিপর্যয় হয়ে গেছে।

বুধবার (১৯ আগস্ট) বিকেলে সিলেট নগর ভবনে ‘আগামীর সিলেট’ প্রকল্প সংক্রান্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, সিটি করপোরেশন আরও বড় হলে আয়ও বাড়বে। বরাদ্দও বেশি পাওয়া যাবে। এতে উন্নয়নের গতিও ত্বরান্বিত হবে।

তিনি বলেন, আপাতত সিটিকে দ্বিগুণ করা হয়েছে। আরও অনেক ইউনিয়ন আছে যারা সিটি করপোরেশনের সঙ্গে যুক্ত হতে চায়। তারা তাদের দাবি তুলুক। আগামীতে বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।

সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (যুগ্ম-সচিব) বিধায়ক রায় চৌধুরী, প্রধান প্রকৌশলী নুর আজিজসহ কাউন্সিলর ও শীর্ষ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সেখানে ‘আগামীর সিলেট’ শীর্ষক সিলেট নগরের উন্নয়ন সম্পর্কিত একটি পরিকল্পনা বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে প্রদর্শন করা হয়। বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের পক্ষে নুসরাত সুমাইয়া ‘আগামীর সিলেট’ শীর্ষক উন্নয়ন পরিকল্পনা তুলে ধরেন।

এর আগে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিলেট সিটি করপোরেশন এলাকায় চলমান বিভিন্ন উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করেন। প্রথমেই তিনি সিলেট নগরের শাহজালাল উপ-শহরের দৃষ্টিনন্দন ওয়াকওয়ের নির্মাণকাজ পরিদর্শন করেন। সেখান থেকে যান শহরতলির হজরত শাহপরান (রহ.) গেট ও ফুটওভার ব্রিজ পরিদর্শনে। উন্নয়ন কাজ পরিদর্শনের সময় মন্ত্রী সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলেন এবং দ্রুত কাজ শেষ করার তাগিদ দেন।

উল্লেখ্য, গত ৯ আগস্ট সিলেট সিটি করপোরেশনের পরিধি বাড়ানোর প্রাথমিক সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে সিলেট জেলা প্রশাসন। এই গণবিজ্ঞপ্তিতে ২৬ দশমিক ৫ বর্গকিলোমিটার আয়তনের নগরকে প্রায় ৫৭ বর্গকিলোমিটারে উন্নীত করার সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। যদিও এর আগে সিটি কনপোরেশন থেকে দেয়া প্রস্তাবনায় নগরের আয়তন বাড়িয়ে ১৬০ দশমিক ৬২ বর্গকিলোমিটার করার প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল।

ছামির মাহমুদ/আরএআর/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]