ক্ষুব্ধ পরিবেশবাদীরা বাসিয়া নদীতে ভাসালেন কাগজের নৌকা!

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক সিলেট
প্রকাশিত: ০৯:৩৫ পিএম, ১০ সেপ্টেম্বর ২০২০

সিলেটের বিশ্বনাথ পৌর শহরের বুক চিড়ে প্রবাহিত নদীর নাম বাসিয়া। এক সময় এ নদীপথেই বিশ্বনাথে পণ্য পরিবহন হতো। আসত বড় বড় মালবাহী বলগেট ও জাহাজ। এখন আর বাসিয়া নদী দিয়ে বড় নৌকা চলাচল তো দূরে থাক, ছোট নৌকাও চলে না। দখল-দূষণের কারণে বাসিয়া এখন একটি মরাখালে পরিণত হয়েছে।

নদীটির নাব্যতা ফিরিয়ে আনার দাবি তুলেছে নদী রক্ষায় কাজ করা সংগঠন 'নোঙর’, বাঁচাও বাসিয়া নদী ঐক্য পরিষদ ও উপজেলা মানবাধিকার কমিশন। তারা বাসিয়া নদীতে কাগজের নৌকা ভাসিয়ে দিয়ে ব্যতিক্রমি কর্মসূচি পালন করেছে।

Sylhet-2

বৃহস্পতিবার (১০ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৫টায় উপজেলা পরিষদ ঘাটের সামনে নদী তীরে দাঁড়িয়ে বাসিয়া নদীতে নৌকা ভাসিয়ে নাব্যতা ফিরিয়ে দেয়ার দাবি জানান তারা।

পরে নদী তীরে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন নোঙর’র চেয়ারম্যান সুমন শামস। বাঁচাও বাসিয়া নদী ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক ফজল খানের সভাপতিত্বে ও ধ্রুবতারার কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল বাতিনের পরিচালনায় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) সিলেটের সাধারণ সম্পাদক ও সুরমা রিভার ওয়াটারকিপার আব্দুল করিম কিম, বাপা সিলেটের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক, জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক ছামির মাহমুদ, বাংলাদেশ পল্লী ফোরামের চেয়ারম্যান চৌধুরী আলী আনহার শাহান, উপজেলা মানবাধিকার কমিশনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আলিম মাছুম ও সিলেটের ছাত্রকল্যাণ পরিষদের সমন্বয়কারী শাহ নাজিম উদ্দিন।

Sylhet-2

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন এক সময়ের খরস্রোতা বাসিয়া নদী এখন মরা খালে পরিণত হযেছে। ময়লা-আবর্জনার স্তূপের কারণে নদী তীরের অবস্থাও করুণ। অথচ এক সময় এ নদীতে পালতোলা বড় বড় নৌকা, লঞ্চ, স্টিমার চলাচল করতো। কিন্তু দখল দূষণ আর ভরাটের কারণে প্রায় দুই যুগ ধরে ওই নদী দিয়ে কোনো নৗকা চলাচল করতে পারছে না। এর কারণে এলাকার কৃষকরা বোরো মৌসুমে পানি সংকটে ভুগছেন।

ছামির মাহমুদ/এমএএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]