ক্ষতিপূরণ চান দুর্বৃত্তের হামলায় আহত কলেজছাত্র

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বরিশাল
প্রকাশিত: ০৬:১০ পিএম, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২০
কলেজছাত্র দাউদ ইব্রাহীমের সংবাদ সম্মেলন

বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলায় দুর্বৃত্তের হামলায় আহত কলেজছাত্র দাউদ ইব্রাহীম ক্ষতিপূরণের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। পাশাপাশি হামলাকারীদের কঠোর শাস্তির দাবিও জানিয়েছেন তিনি। রোববার (১৩ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২টার দিকে বরিশাল রিপোর্টার্স ইউনিটি (বিআরইউ) কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়।

দাউদ ইব্রাহীম মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার কাজিরচর গ্রামের ব্যাপারী বাড়ির মো. মাহবুব আলমের ছেলে এবং ফরিদপুর সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের অনার্স প্রথমবর্ষের দর্শন বিভাগের শিক্ষার্থী।

লিখিত বক্তব্যে দাউদ ইব্রাহীম বলেন, এপ্রিল মাসে আমার বোন সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা থাকা অবস্থায় অসুস্থ হন। বরিশাল নগরীর আরিফ মেমোরিয়াল হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হয়। কিছুটা সুস্থ হলে ২৭ এপ্রিল বোনকে স্বামীর বাড়ি ভোলা সদর কালীবাড়ি রোড সংলগ্ন বাসায় পৌঁছে দিয়ে আসি। ২৮ এপ্রিল ভোরে জানতে পারি গ্রামের বাড়িতে মা হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছেন। মায়ের অসুস্থতার কথা শুনে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেই। ভোলা থেকে মেহেন্দিগঞ্জের আলিমাবাদ ইউনিয়নের গাগুরিয়া ঘাটে আসি। সেখান থেকে বাড়ি যেতে ট্রলারে উঠি। সকাল ৯টার দিকে ট্রলার থেকে দেখতে পাই শ্রীপুর ইউনিয়নের লঞ্চঘাটের একটু আগে কয়েকজন লোক লাঠি, পাইপ, রড ও রামদা নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে। তারা যাত্রীবাহী ট্রলারটি থামিয়ে আমাকে মারধর করে। হামলাকারীদের বারবার বলেছি, আমার মা অসুস্থ। তাড়াতাড়ি বাড়ি যেতে হবে। তারা আমার কথা শোনেনি। মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে লাঠি, লোহার রড ও পাইপ দিয়ে আঘাত করতে থাকে। এতে জ্ঞান হারিয়ে ফেলি আমি। পরে আমাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

তিনি বলেন, আমি দরিদ্র পরিবারের সন্তান। অনেক কষ্টে লেখাপড়া করছি। চিকিৎসার জন্য অনেক টাকা দেনা হয়েছি। চিকিৎসাসহ সবকিছু মিলিয়ে আমার ৪৩ হাজার ৫৮০ টাকা ব্যয় হয়েছে। সুস্থ হয়ে জনপ্রতিনিধিদের জানিয়েও এর ঘটনার বিচার পাইনি। ৩১ আগস্ট ডাকযোগে হিজলা-মেহেন্দিগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য, পুলিশের আইজিপি, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, র‌্যাব-৮ ও মেহেন্দিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে লিখিত অভিযোগ পাঠিয়েছি। কিন্তু এখন পর্যন্ত সুবিচার পাইনি। উপায় না পেয়ে ক্ষতিপূরণের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করছি।

মেহেন্দিগঞ্জ থানা পুলিশের ওসি আবিদুর রহমান বলেন, দাউদ ইব্রাহীমের অভিযোগ পাইনি। ২৮ এপ্রিল শ্রীপুর ইউনিয়নের লঞ্চঘাটে হামলার ঘটনায় মিজানুর রহমান মামলা করেছেন। মামলায় জমি সংক্রান্ত বিরোধ বলে উল্লেখ করা হয়েছে। ওই মামলার চার্জশিট আদালতে দাখিল করা হয়েছে। বর্তমানে মামলাটি আদালতে বিচারাধীন।

সাইফ আমীন/এএম/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]