নারায়ণগঞ্জে দুই বন্ধু মিলে দুই বোনকে ধর্ষণ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নারায়ণগঞ্জ
প্রকাশিত: ০১:৩৩ এএম, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

নারায়ণগঞ্জে দুই বন্ধু মিলে দুই শিক্ষার্থীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করেছে। অভিযোগ পাওয়ার পর পুলিশ দুই শিক্ষার্থীকে উদ্ধার ও দুই লম্পটকে গ্রেফতার করেছে।

মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বিকেলে ধর্ষণের শিকার দুই শিক্ষার্থী নারায়ণগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নুরুন্নাহার ইয়াসমিমের আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি দেন।

ধর্ষণের শিকার দুই শিক্ষার্থীর বয়স ১৩ ও ১৪ বছর হবে। তাদের একজন স্থানীয় একটি মাদরাসার ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে আরেকজন স্কুলের ৭ম শ্রেণিতে লেখাপড়া করে। তারা সম্পর্কে মামাতো ফুফাতো বোন।

ধর্ষকরা হলেন- নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার ফুলহর এলাকার জয় মিয়ার ছেলে রিফাত (১৯) ও একই এলাকার রমিজ উদ্দিন রমু মিয়ার ছেলে রিফাদ (২০)।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, সিদ্ধিরগঞ্জ থানার গোদনাইল এলাকার দুই বোনের সঙ্গে গত দুইমাস আগে কোনো এক বিয়ের অনুষ্ঠানে লম্পদের সাথে তাদের পরিচয় হয়।

সেই থেকে তার মধ্যে ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ অব্যাহত ছিল। এরপর মুঠোফোনে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। তারা ২১ সেপ্টেম্বর বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ২ বোনকে নবীগঞ্জে আসতে বলে।

পরে বন্দর নবীগঞ্জের একটি বাড়িতে ঘরভাড়া নিয়ে উঠেন। সেখানেই দুই বন্ধু মিলে দুই বোনকে ধর্ষণ করে। এরপর আরও দু’দিন সেখানে বিয়ে ছাড়াই অবস্থান করে।

এরপর জয় মিয়ার ছেলে রিফাতের মা হাওয়া বেগমের কাঁচপুরের বাড়িতে রেখে আসে দুই শিক্ষার্থীকে। সেখানে রেখে ধর্ষকরা পালিয়ে যায়। মেয়ের পরিবারের লোকজন দুই লম্পট রিফাত ও রিফাদকে ফোন করে তাদের তথ্য জানতে চাইলে তারা কোনো তথ্য না দিয়ে নানাভাবে টালবাহানা করে।

২৮ সেপ্টেম্বর রাতে থানায় অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ রাতেই নবীগঞ্জ এলাকায় অভিযান চালিয়ে দুই লম্পটকে গ্রেফতার করে। পরে তাদের দেয়া তথ্যমতে দুই বোনকে উদ্ধার করা হয়।

এ ব্যাপারে বন্দর থানার অফিসার ইনর্চাজ ফখরুদ্দীন ভূইয়া জানান, দুই শিক্ষার্থী ধর্ষণের ঘটনায় থানায় পৃথক দুইটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। আর দুই ধর্ষককে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ/এমআরএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]