পানি পান করানোর সময় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা, গ্রেফতার ৩

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক সিলেট
প্রকাশিত: ০৮:৫৯ পিএম, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০
প্রতীকী ছবি

সিলেটে এক স্কুলছাত্রীকে (১২) ধর্ষণ চেষ্টার মামলায় ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে গ্রেফতারকৃতদের ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) স্থানীয়রা নগরের বাদামবাগিচা এলাকায় ধর্ষণ চেষ্টাকালে তিনজনকে ধরে পুলিশের সোর্পদ করেন। ধর্ষণ চেষ্টা মামলায় ওই স্কুলছাত্রীর মা বাদী হয়ে মঙ্গলবার রাতে চারজনকে আসামি করে থানায় মামলা (নং-৩০) দায়ের করেন। এ মামলায় পুলিশ ৩ জনকে গ্রেফতার করলেও জহিরুল নামের আরেক আসামি পলাতক রয়েছেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, ফেঞ্চুগঞ্জের মাইজগাঁও ইউনিয়নের নূরপুর গ্রামের আলাউদ্দিন মিয়ার ছেলে পাভেল আহমদ (২৫), হবিগঞ্জ জেলার বাহুবল থানার ওয়ারিতা গ্রামের মুশাহিদ মিয়ার ছেলে আব্দুল মোতালিব (২২) ও একই থানার দৌলতপুর গ্রামের আছদ্দর মিয়ার ছেলে রাজন মিয়া (২৪)। এছাড়াও পলাতক জহিরুল (২০) বাদামবাগিচা এলাকার বাসিন্দা।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, আসামিরা বাদামবাগিচা এলাকার স্কুল পড়ুয়া মেয়ের কাছে খাওয়ার পানি চায়। তখন মেয়েটি তাদেরকে পানি দেয়ার জন্য বাসার ভেতরে গিয়ে পানি নিয়ে আসলে পাভেল আহমদসহ অন্যরা মেয়েটির হাত-পা ও মুখ চেপে ধরে বসত ঘরের পেছনে নিয়ে গিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করে। এসময় তার চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন পাভেল আহমদসহ তিনজনকে ধরে পুলিশে সোর্পদ করেন।

মহানগর পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (গণমাধ্যম) জ্যোর্তিময় সরকার এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, স্কুল পড়ুয়া এক মেয়েকে ধর্ষণ চেষ্টা করায় স্থানীয় লোকজন তিনজনকে এয়ারপোর্ট থানা পুলিশের হাতে তুলে দেন। পরে মেয়েটির মা বাদী হয়ে অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করে এর সত্যতা পেয়ে আটক তিনজনকে ওই মামলায় গ্রেফতার করে। বুধবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাদের জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

ছামির মাহমুদ/এমএএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]