সাপে কাটা শিশুকে হাসপাতালে নিতে সারাহ রিসোর্টের অসহযোগিতা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ময়মনসিংহ
প্রকাশিত: ১০:১২ পিএম, ২১ অক্টোবর ২০২০
ফাইল ছবি

গাজীপুরের সারাহ রিসোর্টে খেলাধুলা করার সময় জায়ান (৭) নামে এক শিশুকে সাপে কামড়ালে তাকে উন্নত চিকিৎসা দেয়ার ক্ষেত্রে অসহযোগিতার অভিযোগ উঠেছে রিসোর্ট কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে।

ঘটনাটি বৃহস্পতিবার (১৫ অক্টোবর) বিকেলের হলেও গতকাল মঙ্গলবার রাতে জাগো নিউজের কাছে এ অভিযোগ করেছেন শিশুটির মা মাহবুবা হোসাইন। শিশু জায়ান রাজধানীর আজিমপুর এলাকার ফজলুল হালিমের ছেলে। ফজলুল হালিম একজন ব্যাংক কর্মকর্তা বলে জানা গেছে। তবে ভালো খবর হলো শিশু জায়ান এখন পুরোপুরি সুস্থ।

জায়ানের মা মাহবুবা হোসাইন জাগো নিউজকে বলেন, গত বৃহস্পতিবার বিকেলে স্বপরিবারে গাজীপুরের সারাহ রিসোর্ট সেন্টারে ঘুরতে গিয়েছিলাম। খেলাধুলা করার সময় হঠাৎ জায়ানকে একটি সাপে কাটে।

এসময় রিসোর্ট সেন্টারে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে গাজীপুরের দুটি ক্লিনিকে নিয়ে গেলে সেখানকার চিকিৎসক ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যেতে বলেন।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, গাজীপুরের দুটি ক্লিনিকে সারাহ রিসোর্ট সেন্টারের গাড়ি দিয়ে নিয়ে গেলেও মনমনসিংহ মেডিকেলে নিয়ে যাওয়ার জন্য তারা কোনো গাড়ি দেয়নি। পরে আমাদের সঙ্গে ঘুরতে যাওয়া অন্য একজনের ব্যক্তিগত গাড়িতে করে ময়মনসিংহ মেডিকেলে নেয়া হয় জায়ানকে। সারাহ রিসোর্ট সেন্টার থেকে কোনো কর্মকর্তাও আমাদের সঙ্গে যায়নি। তবে একজন গাড়িচালককে পাঠিয়েছেন তারা।

ওইদিন সন্ধ্যার পর ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর রক্ত পরীক্ষা করা হলে জানতে পারি বিষাক্ত সাপে কাটেনি। পরে আমরা নিজ দায়িত্বে হাসপাতাল থেকে নিয়ে আসি। তবে, জায়ান এখন সুস্থ আছে।

তিনি অভিযোগ করে আরও বলেন, আমার বাচ্চাকে সাপে কাটার পর হাসপাতাল থেকে বাড়িতে আনা হলেও সারাহ রিসোর্ট সেন্টার থেকে এখনও কোনো খোঁজখবর নেয়নি।

বিষয়টি নিশ্চিত করে গাজীপুরের সারাহ রিসোর্ট সেন্টারের একজন কর্মকর্তা বলেন, বিকেলে খেলাধুলা করার সময় শিশুটিকে সাপে কাটে। তবে, সাপটি বিষাক্ত নয়। শিশুটিকে ময়মনসিংহ মেডিকেলে নিয়ে যাওয়ার পর জানতে পারি সাপটি বিষাক্ত ছিল না। ওইদিন রাতেই শিশুটিকে তার অভিভাবকরা বাড়িতে নিয়ে যায়। তবে, রিসোর্ট সেন্টারের এ কর্মকর্তা তার নাম বলতে প্রকাশ করেননি।

এমএএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]