তেঁতুলিয়ায় ট্রাকের ধাক্কায় মাইক্রোবাসে থাকা নারীসহ ২ জন নিহত

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি পঞ্চগড়
প্রকাশিত: ১০:০৭ পিএম, ২৪ অক্টোবর ২০২০

পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় মাইক্রোবাস ও ট্রাক্টরের মুখোমুখি সংঘর্ষে মাইক্রোবাসের চালক স্বপন চন্দ্র রায় (২৩) ও যাত্রী সাবিনা ইয়াসমিন (৪০) নিহত হয়েছেন।

শনিবার রাতে তেঁতুলিয়া উপজেলার মাঝিপাড়া এলাকার পঞ্চগড়-তেঁতুলিয়া মাহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ সময় নিহত সাবিনা ইয়াসমিনের স্বামী রবিউল ইসলামসহ আরও ৮ জন আহত হন।

নিহত চালক স্বপন চন্দ্র রায় তেঁতুলিয়া উপজেলা সদরের বুড়িমুটকি এলাকায় তুলেশ চন্দ রায়ের ছেলে এবং সাবিনা ইয়াসমিনের বাড়ি তেঁতুলিয়ার কলোনিপাড়া এলাকায়।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, পঞ্চগড়ের ডুডুমারি এলাকায় এক আত্মীয়র বাসায় দাওয়াত খেয়ে মাইক্রোবাসে পরিবারের ১০ সদস্য নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন রবিউল ইসলাম। মাঝিপাড়া এলাকায় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি পাথরবাহী ট্রাক্টরের সঙ্গে তাদের মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

এ সময় ঘটনাস্থলে মারা যায় রবিউলের স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন ও মাইক্রোবাসের চালক স্বপন। আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে প্রথমে তেঁতুলিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আহতরা হলেন, তেঁতুলিয়া কলোনিপাড়া এলাকার রবিউল ইসলাম (৪৬), তার ছেলে ফয়সাল (১৭), মেয়ে রওনক জাহান (১২), বাবা ফুল মোহাম্মদ (৭৬), মা রোকেয়া বেগম (৭০), মোমিনপাড়া এলাকার মোকছেদ আলীর স্ত্রী তহমিনা বেগম (৫০), মেয়ে মিথিলা আক্তার (১৫) ও একই এলাকার আকতারুজ্জামানের স্ত্রী রেনু বেগম (৪৫)।

এদের মধ্যে ফুল মোহাম্মদ, রোকেয়া বেগম ও রেনু বেগমের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের চিকিৎসক রাকিবুল হাসান বলেন, পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তিকৃত চারজনের মধ্যে তিনজনের অবস্থা আশঙ্কজনক। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।।

সফিকুল আলম/এমএএস/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]