শেবাচিমের ইন্টার্ন চিকিৎসকদের কর্মবিরতি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বরিশাল
প্রকাশিত: ০৬:৩৯ পিএম, ৩১ অক্টোবর ২০২০

বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইন্টার্ন ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও সম্পাদকের বিরুদ্ধে করা মামলা প্রত্যাহারসহ তিন দাবিতে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা কর্মবিরতি পালন করছেন। শনিবার (৩১ অক্টোবর) দুপুর থেকে এ কর্মসূচি শুরু হয়েছে। এতে হাসপাতালের রোগীদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

ইন্টার্ন চিকিৎসক অ্যাসোশিয়েসনের সভাপতি ডা. সজল পান্ডে বলেন, মেডিসিন বিভাগের ইউনিট-৪-এর সহকারী রেজিস্ট্রার ডা. মাসুদ খান আমার ও সাধারণ সম্পাদক ডা. তরিকুল ইসলামের নাম উল্লেখসহ আরও ৮-১০ জনকে আসামি করে মামলা করেছেন। সেই মামলা প্রত্যাহার করতে হবে।

তিনি বলেন, ডা. মাসুদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের নামে কমিশন আদায়, নারী সহকর্মীদের সঙ্গে অশালীন আচরণ, সিনিয়রদের সঙ্গে ঔদ্ধত্য প্রদর্শন এবং অধিনস্থ ইন্টার্ন চিকিৎসকদের ভাতা আটকে রাখার অভিযোগ দেয়া হয়েছিল। সেসব অভিযোগের বিচার করতে হবে। পাশাপাশি ডা. মাসুদ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও গণমাধ্যমে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে মানহানিকর মন্তব্য করেছেন। এজন্যও তাকে বিচারের মুখোমুখি করতে হবে। তিন দফা দাবিতে শনিবার দুপুর ২টা থেকে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতির ঘোষণা দেন তারা। যতক্ষণ দাবি মানা না হবে ততক্ষণ পর্যন্ত তারা কর্মস্থলে ফিরবেন না।

শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. এসএম বাকির হোসেন বলেন, বিষয়টি সমাধানের জন্য শনিবার সকালে দুই পক্ষকে নিয়ে বসেছিলাম। কোনো পক্ষই কাউকে ছাড় দিতে রাজি নন। ডা. মাসুদ তার ওপর হামলা চালানো হয়েছে বলে মামলা করার কথা জানান। তবে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা মাসুদের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

পরিচালক বাকির হোসেন বলেন, হাসপাতালে চিকিৎসক সঙ্কট রয়েছে। ইন্টার্ন চিকিৎসকদের কর্মবিরতির কারণে কিছুটা হলেও রোগীদের স্বাভাবিক চিকিৎসা সেবা ব্যাহত হচ্ছে। ইন্টার্ন চিকিৎসকদের কাজে ফেরাতে আবারও দুই পক্ষকে নিয়ে বসব।

সাইফ আমীন/এএম/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]