ধর্ষণচেষ্টার শিকার স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা, বখাটের শাস্তির দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বরিশাল
প্রকাশিত: ০৮:৪৪ পিএম, ১৪ জানুয়ারি ২০২১

ধর্ষণচেষ্টার শিকার হয়ে লজ্জা,অপমান, ক্ষোভে গত ৩০ ডিসেম্বর আত্মহত্যার পথ বেছে নেয় ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার স্কুলছাত্রী হাফসা আক্তার দিথী (১৫)। সে উপজেলার রায়পুরা সৈয়দ আব্দুল লতিফ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্রী ছিল।

আত্মহত্যার আগে সে লিখে যায়, প্রতিবেশী বখাটে যুবক মামুন হাওলাদার তাকে দীর্ঘদিন ধরে উত্যক্ত করে আসছিল। ঘটনার দিন (৩০ ডিসেম্বর) রাতে ঘরে ঢুকে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে মামুন। সেই অপমানই তার আত্মহত্যার কারণ।

এ ঘটনায় ৩ জানুয়ারি মেয়েটির বাবা নান্টু হাওলাদার বাদী হয়ে মামুনকে আসামি করে আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে নলছিটি থানায় মামলা করেন। গত ১১ জানুয়ারি ওই মামলায় অভিযুক্ত মামুনকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় পুলিশ।

এদিকে, মামলা তুলে নিতে প্রতিদিনই মেয়েটির পরিবারকে হুমকি দিয়ে আসছেন অভিযুক্ত মামুনের বাবা। দেয়া হচ্ছে হত্যার হুমকিও। এতে ভুক্তভোগী পরিবারটি ভুগছে নিরাপত্তাহীনতায়। প্রতিকার চেয়ে এবং মামুনের কঠোর শাস্তির দাবিতে দিথীর পরিবারের সদস্যরা মানববন্ধন করেছেন।

বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে বরিশাল নগরীর অশ্বিনী কুমার টাউন হলের সামনে বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) জেলা শাখা ও রায়পুরা এলাকাবাসীর উদ্যোগে এ কর্মসূচি পালিত হয়।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন দিথীর বাবা দিনমজুর নান্টু হাওলাদার, মা মর্জিনা বেগম, পরিবারের কয়েকজন সদস্য, বাসদ বরিশাল জেলা শাখার আহ্বায়ক ইমরান হাবিব রুমন, সদস্য সচিব ডা. মনীষা চক্রবর্তী, সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরামের সহ-সভাপতি মাফিয়া আক্তার, শানু আক্তার, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সুজন হাওলাদার, বিজন শিকদার, সাইফুল ইসলাম প্রমুখ।

নান্টু হাওলাদার বলেন, ‘মামুন দীর্ঘদিন ধরে দিথীকে উত্যক্ত করে আসছিল। বিষয়টি জানানো হলেও তার বাবা ডালিম হাওলাদার কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। ধর্ষণচেষ্টার অপমান সইতে না পেরেই মেয়েটি আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়। এ ঘটনার নেপথ্যে বখাটে মামুনই দায়ী বলে সে খাতায় লিখে গেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এ ঘটনায় মামলা করলে মামুনকে পুলিশ গ্রেফতার করার পর থেকেই তারা মামলা তুলে নিতে হুমকি দিচ্ছেন। শুধু মামুনের বাবাই নয়, মামলা তুলে না নিলে তার পরিবারের সদস্যরা আমাদেরকে হত্যার হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। তাই আমাদের নিরাপত্তার ও সুষ্ঠু বিচারের স্বার্থে মামুনের বাবা ও তার পরিবারের সদস্যদেরকেও গ্রেফতারের দাবি জানাচ্ছি।’

দিথীর মা মর্জিনা বেগম কান্নাজড়িত কণ্ঠে অভিযুক্তের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করে বলেন, ‘মামুনের বাবা আগে এ ঘটনায় ব্যবস্থা নিলে দিথীকে আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে হতো না। তাকেও গ্রেফতার করা উচিৎ।’

সমাবেশে বাসদ নেত্রী মনীষা চক্রবর্তী বলেন, ‘এই মামুনদের মতো ধর্ষক-খুনিদের বিচার এবং সর্বোচ্চ শাস্তি না হওয়ায় স্বাধীনতার ৫০ বছরে প্রতিটি জেলায়, পাড়া-মহল্লায় এইরকম হাজারও মামুন তৈরি হচ্ছে। তাই অবিলম্বে দ্রুত বিচার আইনে তার সর্বোচ্চ শাস্তি দিয়ে উদাহরণ তৈরি করা উচিৎ। অন্যথায় এমন ঘটনা দিন দিন বেড়েই চলবে।’

সাইফ আমীন/এসএস/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]