নবনির্বাচিত কাউন্সিলরকে হত্যা মামলায় ছাত্রলীগ নেতাসহ গ্রেফতার ৪

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি সিরাজগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৪:০৬ পিএম, ২৩ জানুয়ারি ২০২১

সিরাজগঞ্জে চাঞ্চল্যকর বিজয়ী কাউন্সিলর তরিকুল ইসলাম খান হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামির দুই ভাই ও ছাত্রলীগ নেতাসহ চারজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (২২ জানুয়ারি) রাতে ঢাকা মহানগর পুলিশের সহযোগিতায় ঢাকার খিলগাঁও এলাকা থেকে তিনজন ও উল্লাপাড়ার লাহিড়ী মোহনপুর এলাকা থেকে একজনকে গ্রেফতার করা হয়।

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) বিকেল ৩টায় তাদের গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন সিরাজগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার স্নিগ্ধ আখতার।

গ্রেফতাররা হলেন-শহরের শহীদগঞ্জ ব্যাপারীপাড়া এলাকার আনোয়ার হোসেন ব্যাপারীর ছেলে আইনজীবী অ্যাডভোকেট সানোয়ার হোসেন রতন (৪৫), জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি এনামুল হাসান লিখন (৩৬), একই এলাকার শহীদগঞ্জ মহল্লার শুকুর আলীর ছেলে গোলাম মোস্তফা (৬০) ও উল্লাপাড়া উপজেলার লাহিড়ী মোহনপুর এলাকার মাহতাব মণ্ডলের ছেলে সাইফুল ইসলাম (৪০)।

এ মামলায় প্রধান আসামি ‘উটপাখি’ প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী শাহাদত হোসেন বুদ্ধিন।

গত ১৬ জানুয়ারি সিরাজগঞ্জ পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে ভোট গণনায় ৮৫ ভোটে বিজয়ী হন ডালিম প্রতীকের তরিকুল ইসলাম। ফলাফল ঘোষণা হওয়ার পরপরই পরাজিত প্রার্থী শাহাদত হোসেন বুদ্ধিনের সমর্থকরা বিজয়ী প্রার্থীদের ওপর হামলায় চালায়। এ সময় পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে বিজয়ী কাউন্সিলর তরিকুল গুরুতর আহত হন। ওইদিন রাত ৮টার দিকে শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

পরদিন রোববার (১৭ জানুয়ারি) রাতে নিহতের ছেলে একরামুল হক হৃদয় বাদী হয়ে পরাজিত প্রার্থী ৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদত হোসেন বুদ্ধিনকে প্রধান আসামি করে ৩২ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ৪০-৫০ জনকে আসামি করে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামলার ২৭ নম্বর আসামি স্বপন ব্যাপারীকে গ্রেফতারে করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ইউসুফ দেওয়ান রাজু/এসআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]