খুলনা নগরজুড়ে উন্নয়ন ভোগান্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক খুলনা
প্রকাশিত: ০৩:১৫ পিএম, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১

একটু বৃষ্টি হলেই নগরজুড়ে সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতা, থাকে দীর্ঘ সময়। খুলনার এই জলাবদ্ধতা দূর করতে খুলনা সিটি করপোরেশন (কেসিসি) নগরীতে শুরু করেছে ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন কাজ। অত্যন্ত ধীরগতিতে চলমান এই উন্নয়ন কাজই এখন চরম ভোগান্তিতে ফেলে দিয়েছে নগরবাসীকে। এ কারণে প্রধান সড়কগুলোতে লেগে থাকছে যানজট।

অন্যদিকে নগরীর প্রাণকেন্দ্রের সব সড়কের ফুটপাত এখন হকার, হোটেল মালিক এবং ভবন মালিকদের দখলে চলে গেছে। ফলে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ফুটপাত বাদ দিয়ে সড়ক ধরেই চলতে হচ্ছে পথচারীদের।

jagonews24

নগরের শামসুর রহমান রোড, হাজী মহসিন রোড, আহসান আহমেদ রোড, বাবু খান রোড, কেডিএ এভিনিউ, সাউথ সেন্ট্রাল রোডেও চলছে ড্রেন প্রশস্তকরণের কাজ। সবখানেই ধীরগতিতে কাজ এগিয়ে চলছে।

নগরজুড়ে কোনো রাস্তার উন্নয়ন কাজ, কোনো রাস্তায় খোঁড়াখুঁড়ি আর কোনো রাস্তায় ড্রেন প্রশস্তকরণ কাজ চলায় পুরো নগরজুড়ে জনদুর্ভোগ চরমে উঠেছে। এ কারণে অসহনীয় যানজট তৈরি হচ্ছে শহরে।

নগরীর মিয়াপাড়া এলাকার বাসিন্দা মামুন হোসেন বলেন, ‘ব্যস্ত সড়কগুলোতে প্রতিদিনই ধীরগতিতে চলতে হচ্ছে। রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ির কারণে প্রতিদিন অফিসে যাওয়ার সময় এবং ফেরার পথে দেখা দিচ্ছে তীব্র যানজট। ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে অফিসগামী ও অফিসফেরত যাত্রীদের। বিভিন্ন সংস্থার সমন্বয়হীনতায় খোঁড়াখুঁড়িতে দুর্ভোগ পিছু ছাড়ছে না নগরবাসীর।’

রিকশাচালক আশরাফ আলী বলেন, ‘বছর তিনেক ধরে দেখছি কেডিএ এভিনিউতে কাজ চলছে। এই কাজ কবে শেষ হবে? শুধু কেডিএ না, সব সড়কের ড্রেন খুঁড়ে ফেলা হয়েছে। এমন অবস্থা হয়েছে যে, এক ঘণ্টা আগে যে রাস্তায় রিকশা চালিয়েছি, এক ঘণ্টা পর সেই রাস্তা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। বাধ্য হয়ে ঘুরে ঘুরে গন্তব্যে যেতে হচ্ছে।’

আহসান আহমেদ রোডের একাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, প্রায় দুই মাস হলো দোকান ঠিকমতো খুলতে পারছি না। দোকানের সামনে মাটি, বালি রেখে কাজ চলছে। ব্যবসার অবস্থা খুবই নাজুক।

jagonews24

জানা গেছে, খুলনা মহানগরের সড়কগুলোতে খুব শিগগিরই আবার খোঁড়াখুঁড়ি করবে পিডিবি। খালিশপুর থেকে নতুন রাস্তার মোড়, সেখান থেকে মুজগুন্নী মহাসড়ক হয়ে বয়রা মোড়, বয়রা মোড় থেকে জলিল স্মরণি হয়ে মোস্তর মোড়, সেখান থেকে রূপসা শহর বাইপাস হয়ে জিরো পয়েন্ট, সেখান থেকে খুলনা-সাতক্ষীরা সড়ক দিয়ে হোগলাডাঙ্গা পর্যন্ত সড়ক খোঁড়া হবে।

এ বিষয়ে নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) আন্দোলনের খুলনা মহানগর শাখার সভাপতি এস এম ইকবাল হোসেন বিপ্লব বলেন, ‘ড্রেনের ময়লা রাস্তার পাশে উঠিয়ে রাখা, নির্মাণ সামগ্রী রাস্তায় রাখা, বিভিন্ন উন্নয়ন কাজে দীর্ঘসূত্রিতার কারণে নগরবাসীর দুর্ভোগ বেড়ে যাচ্ছে। যানজট ও ধুলাবালিতে স্বাস্থ্যঝুঁকি কয়েকগুণ বেড়েছে। স্বস্তির খুলনা শহর এখন অবর্ণনীয় ভোগান্তির নগরে পরিণত হয়েছে। উন্নয়ন কাজের সঙ্গে জড়িত সংস্থাগুলোর সমন্বয় জরুরি। সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করলে কাজের ব্যয়ও কমে যাবে, নগরবাসীর সীমাহীন দুর্ভোগও কমবে।’

কতগুলো ড্রেন ও সড়কে কাজ চলছে এবং কবে নাগাদ শেষ হতে পারে তা জানতে চাইলে খুলনা সিটি করপোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী ও ড্রেনেজ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. এজাজ মোরশেদ চৌধুরী বলেন, ‘আগামী জুন মাস নাগাদ কাজ শেখ হবে। কত টাকার কাজ চলে সেটা মেয়রের কাছ থেকে জেনে নেবেন। আমি কোনো তথ্য দিতে পারব না।’

আলমগীর হান্নান/এমএইচআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]