পাইকগাছায় বিয়ে দেয়ার নাম করে শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক খুলনা
প্রকাশিত: ১০:৫৫ পিএম, ০৮ মার্চ ২০২১

ভালো ছেলের সঙ্গে বিয়ে দেয়ার কথা বলে মা ও মেয়েকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে অজ্ঞান করে নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে মিজানুর রহমান (৪৫) নামে এক মাছ ব্যবসায়ী।

এই অভিযোগে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানিয়েছে। খুলনা জেলার পাইকগাছা উপজেলার সোনাতনকাঠি গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে।

পুলিশ জানায়, পাইকগাছা উপজেলার উত্তর সলুয়া গ্রামের মৃত রহিম বক্সের ছেলে মিজানুর রহমান (৪৫) পেশায় একজন মৎস্য ব্যবসায়ী। মাছ বিক্রি করতে গিয়ে পার্শ্ববর্তী সোনাতনকাটী গ্রামের একটি পরিবারের সঙ্গে ব্যবসায়ী মিজানুরের সম্পর্ক তৈরি হয়।

সম্পর্কের সূত্রধরে ওই পরিবারের নবম শ্রেণি পড়ুয়া মেয়েকে চাকরিজীবী ছেলের সঙ্গে বিয়ের প্রলোভন দেখায় ব্যবসায়ী মিজানুর। এরই সূত্রধরে গত ৩ মার্চ বিকেলে ওই পরিবারের বাড়িতে গিয়ে স্কুল পড়ুয়া মেয়ে ও তার মাকে ছেলে দেখানোর জন্য নিজের বাড়িতে ডেকে নেয় ব্যবসায়ী মিজানুর।

সেখানে মা ও মেয়েকে সরবতের সঙ্গে নেশা জাতীয় দ্রব্য খাইয়ে দিলে তারা অচেতন হয়ে পড়ে। ১ ঘণ্টা পর মায়ের জ্ঞান ফিরে আসলে দেখে ওই বাড়িতে ব্যবসায়ী মিজানুর এবং তার মেয়ে নাই। পরে বাড়িতে গিয়ে বিষয়টি তার স্বামীকে জানায়। এর পরের দিন সকালে মেয়েটি কপিলমুনি বাজারের ধান্য মার্কেট এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়।

পরে মেয়েটি তার পরিবারকে জানায় ব্যবসায়ী মিজানুর কয়রা এলাকায় অজ্ঞাত একটি বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করেছে। এ ঘটনায় মেয়েটির মা বাদী হয়ে মিজানুরের বিরুদ্ধে পাইকগাছা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা করেছে।

এ ব্যাপারে পাইকগাছা থাকার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এজাজ শফী জানান, মামলার আসামি ব্যবসায়ী মিজানুরকে আটক করে ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে এবং ভিকটিমকে উদ্ধার করে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আলমগীর হান্নান/এমআরএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]