রাতের আঁধারে কৃষকের ৪৪ শতক জমির ধান কেটে নিয়ে গেল প্রতিপক্ষ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ময়মনসিংহ
প্রকাশিত: ০৮:০৭ পিএম, ০৮ এপ্রিল ২০২১

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে রাতের আঁধারে আস্তম আলী খা নামের এক কৃষকের প্রায় ৪৪ শতাংশ জমির ধান কেটে নিয়ে গেছে প্রতিপক্ষ।

বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) বিকেলে এ ঘটনায় ঈশ্বরগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন কৃষক আস্তম আলী।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, প্রায় ২৯ বছর আগে সিএ খতিয়ানের মালিক পবন সর্দারের ছেলে একমাত্র ছেলে এসএ, আরএস, বিএস খতিয়ানের মালিক মফিজ উদ্দিনের কাছ থেকে ৮৮শতাংশ জমি সাব কবলা দলিল মূলে ক্রয় করেন। কিন্তু ২০২০ সালে এসে একই গ্রামের প্রতিবেশী আব্দুল কাদির ওই জমির মালিকানা দাবি করেন।

বিষয়টি মীমাংসা করতে এলাকার স্থানীয় চেয়ারম্যান মেম্বার ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ নিয়ে শালিস বৈঠক এর সমাধান না হওয়ায় বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে জানানো হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. জাকির হোসেন বিষয়টি উপজেলা সহকারী কমিশনারকে (ভূমি) বিষয়টি যাচাই করে ব্যবস্থা নিতে বলেন। পরে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাঈদা পারভীন কাগজপত্র দেখে জমির মালিক আস্তুম আলী খা’কে ব্যবহার করতে বলেন। প্রতিপক্ষ আব্দুল কাদিরদের জমিতে যেতে নিষেধ করেন।

সেই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে আব্দুল কাদির জমি দখলের চেষ্টা করেন। এর জেরে মুহূর্তে জমির আস্তুম আলী বাদী হয়ে ঈশ্বরগঞ্জ থানায় সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে চিরস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চেয়ে মামলা করেন। ওই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে গত বছরের ৭ সেপ্টেম্বর মাসে আদালত অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। পরবর্তীতে প্রতিপক্ষের লোকজন ময়মনসিংহ জেলা জর্জ কোর্টে আপিল করেন। ঈশ্বরগঞ্জ সিনিয়র সহকারী জজ আদালতের রায় বহাল রেখে আপিল খারিজ করে দেন।

এক পর্যায়ে আব্দুল কাদির হাইকোর্টে আপিল করেন। হাইকোর্ট আগের দু’টি আদেশ ৬ মাসের জন্যে স্থগিত করে স্থিতি অবস্থা বজায় রাখার জন্য আদেশ দেন। কিন্তু হাইকোর্টের আদেশের আগেই জমির মালিক আস্তুম আলী খা জমিতে বোরো ধান রোপণ করে ফেলেন। এমন অবস্থায় ধানক্ষেত পরিচর্যা করে আসছিলেন তিনি। গত বুধবার রাত ১টার দিকে প্রতিপক্ষ আব্দুল কাদির তার লোকজন নিয়ে ওই বোরো জমির ধান কেটে নিয়ে যায়।

জমির ধান কাটার বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত আব্দুল কাদির বলেন, ‘আমার জমির ধান আমি কেটে নিয়েছি।’ তবে রাতে ধান কাটার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি এড়িয়ে যান।

এ ব্যাপারে ঈশ্বরগঞ্জ থানার অফিসার ইনাচর্জ (ওসি) আব্দুল কাদের মিয়া বলেন, ‘রাতে ধান কেটে নিয়ে যাচ্ছে এমন খবরে রাতেই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

মঞ্জুরুল ইসলা/এসজে/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]