নির্দেশনা উপেক্ষা করে চারঘাটে বেশি দামে মাংস বিক্রি

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি রাজশাহী
প্রকাশিত: ০৭:১৮ পিএম, ১৩ মে ২০২১
ফাইল ছবি

রাজশাহীর চারঘাটে সরকারি নির্দেশনা উপেক্ষা করে বেশি দরে বিক্রি হচ্ছে গরু ও মহিষের মাংস। ঈদকে সামনে রেখে এক ধরনের অসাধু বিক্রেতারা হঠাৎ দাম বাড়িয়ে দিয়ে মাংস বিক্রি করছে বলে অভিযোগ করেন পল্লি বিদ্যুৎ মোড়ের মাংস ক্রেতারা।

বৃহস্পতিবার (১৩ মে) সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার চারঘাট বাজার, পল্লি বিদ্যুৎ মোড়, সারদা বাজার, ট্রাফিক মোড়, নন্দনগাছি বাজারসহ বিভিন্ন মোড়ে ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে গরু, মহিষের মাংস বিক্রি হচ্ছে। প্রতিটি মোড়ে গরুর মাংস প্রতি কেজি ৫৫০ টাকা ও মহিষের মাংস প্রতি কেজি ৬০০ টাকা দরে বিক্রি করতে দেখা যায়।

অথচ উপজেলা টাস্কফোর্স কমিটির সভার কার্যবিবরণী অনুযায়ী, প্রতি কেজি গরুর মাংস ৪৮০ টাকা থেকে ৫০০ টাকা এবং মহিষের মাংস ৪৮০ টাকা থেকে ৫২০ টাকা নির্ধারণ করা হয়। উপজেলা টাস্কফোর্স কমিটি মাংসের দাম নির্ধারণ করে দিলেও তা মানছে না মাংস বিক্রেতারা।

পল্লি বিদ্যুৎ মোড়ের মাংস বিক্রেতা রফিকুল বলেন, বেশি দামে গরু ক্রয় করায় মাংসের দাম কেজি প্রতি ৫০ টাকা বাড়িয়ে ৫৫০ টাকা দরে বিক্রি করছি। উপজেলা টাস্কফোর্স কমিটির নির্ধারিত দামে গরু ও মহিষের মাংস বিক্রয় করলে লোকসান হবে বলে তিনি জানান।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে চারঘাট বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি চাঁন মিয়া বলেন, উপজেলা টাস্কফোর্স কমিটিতে গরু ও খাসির মাংসের মূল্য বেধে দিলেও মহিষের মাংসের বিষয়ে আলোচনা হয়নি। তবে নির্ধারিত মূল্যে মাংস বিক্রয়ের জন্য ব্যবসায়ীদের অনুরোধ জানান তিনি।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সৈয়দা সামিরা বলেন, উপজেলা টাস্কফোর্স কমিটিতে মাংসের দর নির্ধারণ করা হয়েছে। কেউ যদি বেশি মূল্যে মাংস বিক্রি করে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ফয়সাল আহমেদ/এআরএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]