ময়মনসিংহে পুলিশ-ছাত্রদল সংঘর্ষের ঘটনায় দুই মামলা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ময়মনসিংহ
প্রকাশিত: ১০:০৬ পিএম, ১৮ জুন ২০২১ | আপডেট: ১০:০৭ পিএম, ১৮ জুন ২০২১

ময়মনসিংহে পুলিশ-ছাত্রদল সংঘর্ষের ঘটনায় দুই মামলা হয়েছে। শুক্রবার (১৮ জুন) সকালে কোতোয়ালী মডেল থানার এসআই মানিকুল বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।

এদিকে ময়মনসিংহে ছাত্রদল নেতাকর্মীদের ওপর হামলা ও গুলি করা হয়েছে বলে দাবি করেছে বিএনপি। এতে ১৭ জন নেতাকর্মী গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

শুক্রবার (১৮ জুন) সকালে ময়মনসিংহ প্রেস ক্লাবে উত্তর জেলা বিএনপি ও দক্ষিণ জেলা বিএনপি সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি করা হয়।

তবে পুলিশ বলছে, পুলিশের কাজে বাধা ও হামলা করা হয়েছে। এতে ছয় পুলিশসহ ১০ জন আহত হন।

বিএনপির দাবি, সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৪০তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) শম্ভুগঞ্জ এলাকার চরকালিবাড়িতে ছাত্রদলের এক আলোচনা সভায় পুলিশ বিনা উস্কানিতে হামলা ও গুলিবর্ষণ করে। এতে ২০ জন ছাত্রদল নেতাকর্মী আহত হন এবং ১৭ জন গুলিবিদ্ধ হন। পাশাপাশি ১০ নেতাকর্মীকে আটক করা হয়। এছাড়া ২৮টি মোটরসাইকেল তুলে নিয়ে যাওয়া হয় বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স। এ সময় উপস্থিত ছিলেন- মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপক একেএম শফিকুল ইসলাম, দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক ডা. মাহবুবুর রহমান লিটন, উত্তর জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক মোতাহের হোসেন তালুকদার, দক্ষিণ জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক জাকির হোসেন বাবলুসহ প্রমুখ।

এদিকে ময়মনসিংহ কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি ফিরোজ তালুকদার জাগো নিউজকে বলেন, বিস্ফোরক আইন এবং পুলিশের কাজে বাধা ও হামলার ঘটনায় কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামলসহ ৩৮ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ৪-৫শ’ ব্যক্তিকে আসামি করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার ময়মনসিংহে পুলিশের সঙ্গে ছাত্রদলের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। বিএনপির দাবি ছাত্রদলের ১৭ জন গুলিবিদ্ধসহ ২০ জন আহত হয়।

মঞ্জুরুল ইসলাম/জেডএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]