ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে শিশুকে হত্যা, সেই রাজা গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক রংপুর
প্রকাশিত: ০৬:৩৯ পিএম, ২৫ জুন ২০২১

রংপুরের মিঠাপুকুরে তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী রহিমা হত্যার অভিযোগে রাজা মিয়াকে (২৫) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। হত্যাকাণ্ডের এক মাস পর আত্মগোপনে থাকা ওই যুবককে গ্রেফতার করা হয়।

রাজা মিয়ার বিরুদ্ধে ধর্ষণচেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে ১০ বছরের শিশুকে শ্বাসরোধ করে হত্যা ও মরদেহ গুম করার অভিযোগে মামলা রয়েছে। রাজা বুজরুক সন্তোষপুর গ্রামের শামিম মিয়ার ছেলে।

শুক্রবার (২৫ জুন) দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। রংপুর জেলার সহকারী পুলিশ সুপার (ডি সার্কেল) মো. কামরুজ্জামান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার রাজা মিয়া ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার বিষয়টি স্বীকার করেছেন। রাজা মিয়াকে গ্রেফতারের পর হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ব্লেড, বটি, কোদাল, রক্তমাখা কাথা ও লুঙ্গি উদ্ধার করা হয়েছে। স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে রাজি হওয়ায় শুক্রবার দুপুরে আদালতে নেয়া হয় রাজাকে। তবে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানো নির্দেশ দেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) বিকেলে ফরিদপুর জেলার নগরকান্দা এলাকার তালমার মোড় এলাকায় অভিযান চালিয়ে আত্মগোপনে থাকা রাজা মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়।

মামলার এজাহার ও মিঠাপুকুর থানা সূত্রে জানা গেছে, গত ২৬ মে বিকেলে উপজেলার বুজরক সন্তোষপুর গ্রামের ১০ বছর বয়সী শিশু রহিমা তার মায়ের কাছ থেকে টাকা নিয়ে চিপস কেনার জন্য বাড়ির পাশের দোকানে যায়। এরপর সে আর বাড়িতে ফেরেনি। অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তাকে পাওয়া যাচ্ছিল না।

ঘটনার পরদিন সকালে প্রতিবেশী রাজা মিয়াকে তার নানির বাড়িতে খুঁজে না পাওয়ায় সন্দেহ সৃষ্টি হয়। তখন শিশুটির পরিবার গ্রামের লোকজনসহ রাজার নানির বাড়িতে গেলে আধাপাকা ঘরের মেঝেতে কাঁদা দেখে সবার সন্দেহ বেড়ে যায়। এরপর তারা পুলিশকে খবর দেন।

ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘরের মেঝের মাটি সরিয়ে গর্ত করে চাপা দিয়ে রাখা নিখোঁজ শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

মরদেহ উদ্ধারের সময়ে রাজা মিয়ার নানি হালিমা বেগমকে পুলিশ গ্রেফতার করে। ওই ঘটনায় রাজা মিয়া ও হালিমা বেগমকে আসামি করে শিশুটির বাবা বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

জিতু কবীর/এএএইচ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]