ব্যস্ত হয়ে পড়েছে সাভারের চামড়াশিল্প নগরী

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি সাভার
প্রকাশিত: ০৩:৩০ এএম, ২৩ জুলাই ২০২১ | আপডেট: ০৪:৫৫ এএম, ২৩ জুলাই ২০২১

ঈদের দ্বিতীয় দিনে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে কাঁচা চামড়া আসতে শুরু করেছে সাভারের চামড়াশিল্প নগরীতে। এতে ওই শিল্প নগরীতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন শ্রমিকরা।

২২ জুলাই (বৃহস্পতিবার) দুপুরে সাভারের হরিনধরা এলাকার অবস্থিত চামড়াশিল্প নগরীর বিভিন্ন ট্যানারি ঘুরে এমন চিত্র চোখে পড়ে।

দেখা যায়, ঢাকা এবং এর আশপাশের এলাকা থেকে একের পর এক ট্রাকযোগে কাঁচা চামড়া বিভিন্ন ট্যানারিতে নিয়ে আসা হচ্ছে। চামড়াগুলো ট্রাক থেকে নামানের পর শ্রমিকরা সেগুলোতে লবণ মেখে গুদামে স্তূপ করে রেখে দিচ্ছেন।

মৌসুমি চামড়া ব্যবসায়ী জাহিদুল ইসলাম জানান, ঈদের দিন বিভিন্ন মাদরাসা এবং মহল্লায় মহল্লায় ঘুরে চামড়া কিনেছেন তিনি। চামড়াগুলো যাতে নষ্ট না হয় এবং ভালো দামের আশায় বুধবার সন্ধ্যায় সেগুলো ট্যানারিতে নিয়ে আসেন। তবে এদিন চামড়াগুলো সঠিক দামে বিক্রি করতে না পারায় সেগুলো নষ্ট হয়ে যায়। বাধ্য হয়ে বৃহস্পতিবার নষ্ট চামড়াগুলো কম দামে বিক্রি করেন।

jagonews24

জানতে চাইলে মুক্তা ট্যানারির ব্যবস্থাপনা পরিচালক এসএম শহিদুল্ল্যাহ বলেন, ‘আমরা সরকার নির্ধারিত দামেই চামড়া কিনছি। কাল থেকে চামড়া কিনে লবণ মেখে সংরক্ষণ করা শুরু করেছি। আশা রাখি এবার আমাদের চামড়ার কোনো ঘাটতি থাকবে না।’

বিসিক সূত্রে জানা যায়, বিসিকশিল্প নগরী ছোট-বড় মিলিয়ে ১২৫টি ট্যানারিতে চামড়া আসা শুরু করেছে। এবার ৮০ লাখ গবাদি পশুর চামড়া সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। দেশে প্রতিবছর প্রায় দেড় কোটি গবাদি পশুর চামড়া ক্রয় করা হয়। যার ৮০ ভাগ চামড়াই সংগ্রহ করা হয়ে থাকে কোরবানির ঈদকে ঘিরে।

jagonews24

বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিটিএ) সাধারণ সম্পাদক সাখওয়াত উল্লাহ বলেন, ‘ঈদের দিন সন্ধ্যা থেকেই ট্যানারিগুলোতে কাঁচা চামড়া আসা শুরু হয়েছে। গত বছরের ন্যায় এবারও ৮০ লাখ চামড়া সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে।’

সরকারের নির্ধারিত দামের মধ্যেই তারা চামড়া সংগ্রহ করেছেন বলে জানান। এছাড়া চামড়া পরিবহন লকডাউনের আওতামুক্ত রাখায় ট্যানারিগুলোতে চামড়ার সঙ্কট হবে না বলে মনে করেন তিনি।

আল-মামুন/জেডএইচ/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]