পুলিশের সঙ্গেও প্রতারণা!

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি রাজশাহী
প্রকাশিত: ০৭:৪৯ পিএম, ৩১ জুলাই ২০২১
প্রতারণার অভিযোগে গ্রেফতার আল আমিন সরকার

‘হ্যালো আসসালামু আলাইকুম। আমি পুলিশ হেড কোয়ার্টারের সংস্থাপন শাখার ইন্সপেক্টর সালাম বলছি। আপনার নাম পার্বত্য জেলার জন্য নমিনেশন দেয়া হয়েছে। ঠেকাতে চাইলে যোগাযোগ করেন।’ এভাবেই ভয় দেখিয়ে আল আমিন সরকার (৩৭) নামের এক যুবক পুলিশ সদস্যদের প্রতারণার জালে ফেলে হাতিয়ে নিতেন অর্থ। এসব অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় পুলিশ।

শনিবার (৩১ জুলাই) বিকেলে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন রাজশাহী জেলা পুলিশের মুখপাত্র ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইফতে খায়ের আলম।

ঘটনা সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘রাজশাহী পুলিশ লাইনস, মোহনপুর থানাসহ আরও বেশ কয়েকটি জায়গায় কর্তব্যরত পুলিশ সদস্যদের মোবাইল নম্বর ও নাম সংগ্রহ করে আল আমিন নামের এক প্রতারক প্রতারণা করতে থাকেন। এক মাসে চারজন পুলিশ সদস্যকে বদলির কথা বলে ওই প্রতারক অর্থ দাবি করেন। একাধিক পুলিশ সদস্য বিষয়টি এসপিকে অবগত করলে এ বিষয়ে গুরুত্ব দিয়ে তার বিষয়ে খোঁজ-খবর নেয়া হয়। জেলা গোয়েন্দা পুলিশ তার অবস্থান জানতে পারে। পরবর্তীতে শুক্রবার (৩০ জুলাই) দিনাজপুরের বিরামপুর থানার চাঁদপুর গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করে রাজশাহীতে নিয়ে আসা হয়।’

জেলা পুলিশের মুখপাত্র আরও বলেন, ‘প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আল আমিন তার প্রতারণার কথা স্বীকার করে। সে জানায়, প্রতারণাই ছিল তার পেশা। পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের অগণিত সংখ্যক পুলিশ সদস্যের কাছ থেকে এভাবে প্রতারণার মাধ্যমে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে সে। ২০১৫ সাল থেকে সে (প্রতারক) এ কাজের সঙ্গে যুক্ত। তার কাছে বিভিন্ন নামে নিবন্ধন করা একাধিক বিকাশ এবং নগদের সিম পাওয়া গেছে।’

আইনি প্রক্রিয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘তাকে গ্রেফতারের পর মোহনপুর থানায় জেলা গোয়েন্দা শাখা পুলিশের পক্ষ থেকে শনিবার দুপুরে একটি প্রতারণার মামলা দায়ের করা হয়েছে। বিকেলে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।’

ফয়সাল আহমেদ/এসজে/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]