যাত্রী সঙ্কট : বরিশাল থেকে ছাড়েনি ঢাকাগামী কোনো লঞ্চ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বরিশাল
প্রকাশিত: ০৩:৫০ এএম, ০১ আগস্ট ২০২১

যাত্রী সঙ্কট ও মাস্টার, সুকানিসহ কর্মচারীরা ছুটিতে থাকায় বরিশাল নদী বন্দর থেকে ঢাকাগামী কোনো লঞ্চ ছেড়ে যায়নি।

শনিবার (৩১ জুলাই) সন্ধ্যার পর বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) লঞ্চ চলাচলের ঘোষণা দেন। তবে বরিশাল নদী বন্দরে থাকা আটটি লঞ্চের একটিও আজ রাতে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যাবে না বলে জানিয়েছে লঞ্চ কর্তৃপক্ষ ও স্টাফরা।

শনিবার রাত ৯টার দিকে বরিশাল নদী বন্দর এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, লঞ্চ চলাচলের ঘোষণায় যাত্রীরা নদী বন্দরে আসছেন। এ সময় লঞ্চ ঘাটের পন্টুনে শতাধিক যাত্রীকে অপেক্ষা করতে দেখা যায়। তবে নৌবন্দরে থাকা আটটি লঞ্চের সবগুলোর প্রবেশপথ বন্ধ রাখা ছিল। যাত্রী তোলা হয়নি। এমনকী লঞ্চ ছাড়ার কোনো প্রস্তুতিও ছিল না। লঞ্চগুলোর সামনে কয়েকজন স্টাফ দাঁড়িয়ে ছিলেন। দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষার পর রাতে লঞ্চ ছাড়বে না জানতে পেরে যাত্রীরা নদী বন্দর ত্যাগ করেন।

জানতে চাইলে বরিশাল-ঢাকা রুটে চলাচলকারী এমভি মানামী লঞ্চের ব্যবস্থাপক (কাস্টমার সার্ভিস) মো. রিজওয়ান হোসেন রিপন বলেন, ‘সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার পর বিআইডব্লিউটিএর লঞ্চ চলাচলের ঘোষণার কথা জানতে পারি। এরপর নদী বন্দরে গিয়ে দেখতে পাই যাত্রী নেই। যে কজন যাত্রী নদী বন্দরে অপেক্ষা করছিলেন, তা দিয়ে লঞ্চে এক তলাই ভরবে না। তাছাড়া লঞ্চের মাস্টার, সুকানিসহ কর্মচারীরা ছুটিতে আছেন। তাদের অনেকের বাড়ি দূর-দূরান্তে। তারা অনেকেই তখনো বাড়ি থেকে আসতে পারেননি। তারা না আসলে লঞ্চ চলবে কীভাবে?’

jagonews24

তিনি আরও বলেন, ‘লঞ্চ চলাচলের সিদ্ধান্ত বিকেলে জানালেও হতো। তাহলে হয়তো যাত্রী আসতো এবং লঞ্চের স্টাফরা এসে ঢাকা যাওয়ার প্রস্তুতি নিতেন। এরপর রাতে যাত্রী নিয়ে লঞ্চগুলো ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়া সম্ভব হতো। কিন্তু এমন সময় ঘোষণা এসেছে, তখন কিছুই সম্ভব ছিল না।’

লঞ্চ মালিক সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি ও সুন্দরবন লঞ্চ কোম্পানির মালিক মো. সাইদুর রহমান রিন্টু বলেন, ‘লঞ্চের বেশিরভাগ যাত্রীই বিকেলের দিকে নদী বন্দরে আসেন। কিন্তু ওই সময়ও লঞ্চ চলাচলের ঘোষণা আসেনি। বিআইডব্লিউটিএ লঞ্চ চলাচলের ঘোষণা দিয়েছে রাতে। তাছাড়া যারা ঢাকা যাওয়ার ছিল, তারা আগেই সড়ক পথে রওয়ানা হয়ে গেছেন। তাহলে যাত্রী আসবে কোথা থেকে?’

তিনি আরও বলেন, ‘অন্যদিকে লঞ্চে মাস্টার, সুকানিসহ অনেক কর্মচারী ঈদের আগে ছুটিতে গেছেন। লকডাউন থাকায় তাদের ৫ আগস্ট পর্যন্ত ছুটি দেয়া হয়েছিল। লঞ্চ চালানোর মতো জনবলও নেই। তাই বরিশাল নদী বন্দর থেকে আজ রাতে লঞ্চ ছাড়ার কোনো সম্ভাবনা নেই।’

jagonews24

তবে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) বরিশাল কার্যালয়ের যুগ্ম পরিচালক (বন্দর ও পরিবহন) মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘ঘোষণা আসার পরপরই লঞ্চ চলাচলের বিষয়টি ফোন দিয়ে লঞ্চ মালিক ও সুপারভাইজারদের জানিয়ে দেয়া হয়। তবে যাত্রী সঙ্কট থাকায় রাতে বরিশাল নদী বন্দর থেকে ঢাকার উদ্দেশে কোনো লঞ্চ ছাড়া হয়নি বলে মালিকপক্ষরা জানিয়েছেন।’

প্রসঙ্গত, পোশাক কারখানাসহ রফতানিমুখী শিল্প-কারখানায় কাজে যোগ দিতে শ্রমিকদের পরিবহনের জন্য যাত্রীবাহী লঞ্চ রোববার (১ আগস্ট) দুপুর ১২টা পর্যন্ত চলাচলের অনুমতি দিয়েছে সরকার।

সাইফ আমীন/এমআরআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]