৬৭ বছরের পুরোনো ঈদগাহে হালচাষ, ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ময়মনসিংহ
প্রকাশিত: ০৫:৫৮ পিএম, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

এলাকাবাসীর ঈদের নামাজ আদায়ের জন্য ১৯৫৬ সালে ২ একর জমি ওয়াকফ করেন ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার স্বল্প পশ্চিমপাড়ার আব্দুর রহিম। সেই থেকে জমিতে খেলাধুলা ও ঈদের জামায়াত অনুষ্ঠিত হচ্ছে। বাবা মারা যাওয়ার পর ইদগাহ মাঠের পরিচালনা করেন ছেলে হেলাল উদ্দিনসহ স্থানীয় কয়েকজন। তিনি ঈদগাহ মাঠ কমিটির সদস্যও। কিন্তু ৬৭ বছর পর সেই জমিতে হালচাষ শুরু করেছে ওই কমিটি।

এতে ক্ষুব্ধ হয়ে মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে গৌরীপুর উপজেলা পরিষদ চত্বরে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেন এলাকাবাসী। একইসঙ্গে ওই জমিতে চাষ বন্ধ করতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে স্মারকলিপিও দিয়েছেন তারা।

স্থানীয় বাসিন্দা সুমন মিয়া বলেন, ছোটবেলা থেকেই আমরা এ মাঠে খেলাধুলা ও ঈদের নামাজ পড়ে আসছি। হঠাৎ করে কমিটির লোকজন এখানে হালচাষ করে মাসকলাই বীজ বপন করেছে।

আরেক বাসিন্দা বাদশা মিয়া বলেন, জমি হেলাল উদ্দিনের বাবা ঈদগাহ মাঠের জন্য ওয়াকফ করেছিলেন। বেশ কিছুদিন ধরে তিনি ওই জমি দখলের চেষ্টা করছেন। সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) ট্রাক্টর দিয়ে হালচাষ করে মাসকলাই বীজ বপন করেছেন।

jagonews24

গৌরীপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আল মুক্তাদির শাহীন জাগো নিউজকে বলেন, বছরে দুই ঈদের নামাজ পড়ানোর পাশাপাশি প্রাচীন এ মাঠে এলাকার শিশু-কিশোররা দীর্ঘদিন ধরে খেলাধুলা করছে। বর্তমানে দখল করার উদ্দেশ্যেই পরিচালনা কমিটির সদস্যরা পরিকল্পিতভাবে মাঠে হালচাষ করছেন। মাঠ দখলমুক্ত করতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে হেলাল উদ্দিনের মোবাইলে একাধিকবার ফোন করলেও তিনি রিসিভ করেননি।

স্বল্প পশ্চিমপাড়া ঈদগা মাঠ পরিচালনা কমিটির সভাপতি আব্দুল হেকিম বলেন, ঈদগাহ মাঠের উন্নয়নের জন্য চাষাবাদ করা হয়েছে। এখানে খেলাধুলা করার কোনো নিয়ম নেই।

এ বিষয়ে ইউএনও হাসান মারুফ জাগো নিউজকে বলেন, ঈদগাহ মাঠটি ওয়াকফ করা সম্পত্তি কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এরপর যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মঞ্জুরুল ইসলাম/এসজে/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]