তিনদিন ধরে পানি নেই আগৈলঝাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বরিশাল
প্রকাশিত: ০৪:৫২ পিএম, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১

তিনদিন ধরে পানি নেই বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। এতে রোগীসহ হাসপাতালের চিকিৎসক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, হাসপাতালে পানি ওঠানোর একমাত্র পাম্পটি গত তিনদিন ধরে বিকল। এতে করে হাসপাতালে ভর্তিকৃত ৩২ জন রোগী ও তাদের স্বজনদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। পাশাপাশি কোয়ার্টারে বসবাসরত চিকিৎসক ও বিভিন্ন স্টাফরা দুর্ভোগে পড়েছেন। পানি না থাকায় দুর্ভোগে পড়েছেন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স জামে মসজিদে শত শত মুসুল্লি।

সূত্র আরও জানায়, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একটি মাত্র টিউবওয়েল সচল রয়েছে। তবে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কোয়ার্টারসহ হাসপাতাল অভ্যন্তরে অন্যান্য টিউবওয়েলগুলো আগে থেকেই বিকল। ওই একটি টিউবওয়েল থেকে দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে রোগীর স্বজনসহ হাসপাতালের স্টাফরা খাবার পানি সংগ্রহ করছেন।

হাসপাতালে একাধিক রোগীর স্বজনরা জানান, পানি না থাকায় চরম কষ্টে হচ্ছে। ব্যবহারের জন্য বাইরে থেকে পানি বয়ে নিয়ে আসতে হচ্ছে। খাবার পানি কিনতে হচ্ছে। গত শুক্রবার থেকে এ সংকট চলছে। পানি না থাকায় ওয়ার্ডের ফ্লোর থেকে শুরু করে টয়লেট পরিষ্কার বন্ধ রয়েছে। বাইরে থেকে পানি সংগ্রহ করে প্রয়োজনীয় কাজ করতে হচ্ছে।

হাসপাতালে বহির্বিভাগে চিকিৎসা নিতে আসা দক্ষিণ গৈলা গ্রামের নমিতা মণ্ডল বলেন, সাবান-পানি দিয়ে হাত ধুয়ে হাসপাতালে প্রবেশের জন্য বেসিন রাখা আছে। সেখানে সাবান রাখা থাকলেও পানি নেই। এ কারণে হাত না ধুয়েই হাসপাতালে যেতে হচ্ছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রাবেয়া বেগম, তিথি মণ্ডল, ইতি, মধু ও রাতুল অধিকারী বলেন, তিনদিন ধরে পানি নেই। শৌচাগার ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। মলমূত্র শৌচাগারের মেঝেতে ছড়িয়ে রয়েছে। দুর্গন্ধে আশপাশ দিয়েও হাটা যায় না।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. বখতিয়ার আল মামুন বলেন, মোটর পুড়ে হাসপাতালের একমাত্র পাম্পটি বিকল হয়ে পড়েছে। নতুন মোটর লাগানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে। আশা করছি আগামীকালের মধ্যে তা স্থাপন করা সম্ভব হবে।

সাইফ আমীন/আরএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]