ঘর দেওয়ার নামে হাতিয়েছেন পৌনে চার লাখ টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক বরিশাল
প্রকাশিত: ০৭:১৪ পিএম, ১৭ অক্টোবর ২০২১

বরিশাল সদর উপজেলার টুঙ্গিবাড়িয়া ইউনিয়নে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের ঘর দেওয়ার নাম করে ১৫ দরিদ্র ব্যক্তির কাছ থেকে পৌনে চার লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে খলিলুর রহমান নামের এক যুবককে আটক করা হয়েছে।

রোববার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে প্রতারণার শিকার ব্যক্তিরা কৌশলে তাকে নগরীর নথুল্লাবাদ বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ডেকে এনে আটক করে সদর উপজেলা প্রশাসনের কাছে সোপর্দ করেন। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হস্তান্তর করা হলে তাকে এক বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

দণ্ডপ্রাপ্ত খলিলুর রহমান সদর উপজেলা রায়পাশা-কড়াপুর ইউনিয়নের রায়পাশা গ্রামের মো. ফারুক হাওলাদারের ছেলে।

ইউনিয়নের একাধিক বাসিন্দা জানান, কয়েক মাস আগে উপজেলার টুঙ্গিবাড়িয়া ইউনিয়নের বারইকান্দি ও পতাং গ্রামে গিয়ে নিজেকে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের মাঠ কর্মকর্তা পরিচয় দেন খলিলুর রহমান। প্রকল্প থেকে ঘর দেওয়ার জন্য (এ প্রকল্পে ঘর দেওয়া হয় না) একটি কমিটিও গঠন করেন। এরপর ১৫ জন দরিদ্র ব্যক্তির কাছ থেকে ২৫ হাজার টাকা করে মোট তিন লাখ ৭৫ হাজার টাকা উত্তোলন করেন। পরে ঘর না দিয়ে দরিদ্র ব্যক্তিদের সঙ্গে টালবাহানা শুরু করেন। এক পর্যায়ে দরিদ্র ব্যক্তিরা টাকা ফেরত চাইলে খলিলুর রহমান তার ইউসিবি ব্যাংক বরিশাল শাখার বিপরীতে এক লাখ ৮০ হাজার টাকার একটি চেক দেন।

স্থানীয়রা আরও জানান, উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের ম্যানেজের কথা বলে সম্প্রতি দরিদ্র ব্যক্তিদের কাছ থেকে আরও ১০ হাজার টাকা করে দাবি করেন খলিল। এতে তাদের সন্দেহ হয়। তারা খলিলের দেওয়া চেকটি নগদায়ন করতে যান। কিন্তু ব্যাংক হিসেবে কোনো টাকা না থাকায় চেকটি ডিজঅনার হয়। এরপর তারা প্রতারণার বিষয়টি নিশ্চিত হন। রোববার দুপুরে টাকা দেওয়ার কথা বলে তারা খলিলকে নথুল্লাবাদ বাসস্ট্যান্ডে ডেকে নেন। সেখান থেকে তাকে আটক করে উপজেলা প্রশাসনের কাছে সোপর্দ করা হয়।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক বরিশাল সদর উপজেলা ভূমি কর্মকর্তা নিশাত তামান্না বলেন, খলিলুর রহমান ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাছে তার প্রতারণার কথা স্বীকার করেছেন। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, তিনি একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সঙ্গে যুক্ত নন। তাকে এক বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

সাইফ আমীন/এসআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]