সাইকেল নিয়ে পালানোর সময় অটোরিকশায় ধাক্কা, পুলিশে দিলো জনতা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি রাজশাহী
প্রকাশিত: ০৯:৫২ পিএম, ২৩ অক্টোবর ২০২১

রাজশাহী নগরীতে সাইকেল চুরি করে পালানোর সময় শামসুল ইসলাম (৩১) নামে এক যুবককে আটক করে পুলিশে দিয়েছেন স্থানীয়রা। তবে তাকে থানায় না নিয়ে পথিমধ্যে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুর রউফের বিরুদ্ধে।

শনিবার (২৩ অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বোয়ালিয়া থানা এলাকায় আটকের পর তাকে পুলিশে দেওয়া হয়।

গ্রেফতার শামসুল চন্দ্রিমা থানাধীন আসাম কলোনি এলাকার মৃত কবির হোসেনের ছেলে। সাইকেল চুরিসহ ছোট-খাট চুরির সঙ্গে তার সম্পৃক্ততা রয়েছে বলেও পুলিশের কাছে স্বীকার করেন তিনি।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ভদ্রামোড়ে কর্তব্যরত সার্জেন্ট বিপুল জাগো নিউজকে বলেন, সড়কে একটি ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার সঙ্গে সাইকেলটি ধাক্কা খায়। এতে সাইকেলে থাকা আরোহী পড়ে গেলে এলাকার লোকজন দৌড়ে অটোরিকশা ও সাইকেল আরোহীর কাছে যায়। ভিড় দেখে সাইকেলটির আসল মালিক শরিফুলও কৌতূহলবশত সেখানে যান। পরে শরিফুল দেখেন দুর্ঘটনাকবলিত সাইকেলটি তার। উপস্থিত জনতার সামনে শরিফুল সাইকেলটির দাবি করলে শামসুল নামের ওই যুবক পালানোর চেষ্টা করেন। পরবর্তীতে স্থানীয়রা তাকে বেঁধে রাখে।

সাইকেল চোরের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, শামসুলকে আটক করে বোয়ালিয়া থানায় খবর দেওয়া হয়েছিল। পরে বোয়ালিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রউফ এসে তাকে গ্রেফতার করে নিয়ে যান।

তবে এ বিষয়ে বোয়ালিয়া থানার ডিউটি অফিসার জানান, এমন কোনো আসামি বোয়ালিয়া থানায় নেই। তিনি এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট সার্জেন্টের সঙ্গে কথা বলার পরামর্শ দেন।

এ বিষয়ে সার্জেন্ট বিপুলের কাছে আবারো জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি ওই যুবককে নিজে আটক করে ওয়ারলেস ও ফোনে যোগাযোগ করে লিমা ওয়ানকে জানিয়ে থানা পুলিশের গাড়িতে হস্তান্তর করেছি। তারা যদি তাকে গ্রেফতার না করে ছেড়ে দেন এতে আমি দায়ী নই। অভিযুক্তকে ছেড়ে দিলে এটা ঠিক হয়নি। 

এদিকে চোর ধরেও তাকে থানায় না নিয়ে রাস্তায় ছেড়ে দেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করেন বোয়ালিয়া থানার উপ-পরিদর্শক রউফ। তিনি জাগো নিউজকে বলেন, আসলে সাইকেল চোরটি অসুস্থ ছিল। এছাড়া সাইকেলের মালিক বা বাদী থানায় গিয়ে মামলা করতে চাইছিল না। তাই চোরকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

বিষয়টি রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র ও নগর পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার গোলাম রুহুল কুদ্দুসকে জানানো হলে তিনি বলেন, বিষয়টি জানা নেই। প্রকৃত ঘটনার খোঁজ-খবর নিয়ে পরবর্তী এ বিষয়ে জানাতে পারবো।

ফয়সাল আহমেদ/এসজে/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]