দেদারসে সড়কের গাছ চুরি, নীরব বন বিভাগ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক সিলেট
প্রকাশিত: ০৮:০৮ পিএম, ২৪ অক্টোবর ২০২১

সিলেট তামাবিল সড়কের দুই পাশ থেকে প্রতিদিনই চুরি হচ্ছে গাছ। রাতের আঁধারে একটি চক্র গাছগুলো কেটে নিয়ে গেলেও নীরব বন বিভাগ।

সড়কের হরিপুর বাজার সংলগ্ন এলাকা থেকে শনিবার (২৩ অক্টোবর) রাতে বন বিভাগের মূল্যবান গাছ চুরি করে পাশের একটি স’মিলে রাখা গাছ এলাকাবাসী জব্দ করেছেন।

স্থানীয়রা জানান, হরিপুর-গাছবাড়ি রাস্তা সংলগ্ন আব্দুল হামিদের মালিকানাধীন স’মিলটি ভাড়া নিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করছেন আনোয়ার হোসেন। সড়কের চুরি হওয়া বনবিভাগের গাছের টুকরো পাওয়া যায় তার মিলে। পরে স্থানীয়রা এগুলো জব্দ করেন।

স্থানীয় বাসিন্দা সাহেদ আহমদ বলেন, আমার বাড়ির সামনে সড়কে লাগানো বনবিভাগের তিনটি গাছ রাতে কোনো এক সময় কেটে নিয়ে আনোয়ারের মিলে রাখা হয়েছে। পরে বিষয়টি দেখে আমরা গাছগুলো জব্দ করেছি।

jagonews24

তিনি বলেন, বিভিন্ন এলাকা থেকে চুরি হওয়া গাছ এ স’মিলে আসে এমটাই অভিযোগ উঠেছে। এদিকে বিষয়টি ধামাচাপা দিতে স্থানীয় প্রভাবশালী চক্র চেষ্টা চালাচ্ছে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক জাকারিয়া মাহমুদ বলেন, হরিপুর এলাকায় সড়ক ও জনপথের সড়কে ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে বনবিভাগের আওতায় বিভিন্ন উপকারভোগী সমিতির সদস্যদের মাধ্যমে বৃক্ষরোপণ করা হয়। গাছগুলো বিভিন্ন সময় চুরি হচ্ছে। বিষয়টি বন বিভাগকে জানালেও কোনো পদক্ষেপ নেয়া হয়নি।

এ বিষয়ে স’মিল মালিক আনোয়ার হোসেন বলেন, আমি মিলটি ভাড়া নিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছি। কয়েকদিন হতে মিলটির বিদ্যুতের ট্রান্সমিটার নষ্ট হওয়ায় তা বন্ধ রয়েছে। তাই মিলে মানুষ না থাকায় কে বা কারা গাছের টুকরোগুলো রেখে গেছেন আমি কিছুই জানি না।

জৈন্তাপুরস্থ সারী বিট ও সারী রেঞ্জের রেঞ্জার সাদ উদ্দিন আহমদ বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। এমনকি কেউ গাছ চুরি ও উদ্ধার হওয়ার বিষয়টি আমাদের জানায়নি। আমি লোক পাঠিয়ে খরব নিচ্ছি। যদি গাছগুলো বনবিভাগের হয় তাহলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ছামির মাহমুদ/আরএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]