রাজশাহীতে পুলিশের সঙ্গে যুবদলের সংঘর্ষ, আহত ১০

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি রাজশাহী
প্রকাশিত: ০৯:০৫ পিএম, ২৭ অক্টোবর ২০২১

রাজশাহীতে মহানগর যুবদলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। বুধবার (২৮ অক্টোবর) বিকেল সোয়া ৩টার দিকে নগরীর মালোপাড়া এলাকায় মহানগর বিএনপি কার্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় পুলিশের মালোপাড়া ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. ইফতেখায়ের আলম গুরুতর আহত হয়েছেন। বর্তমানে তিনি রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

যুবদলের নেতাকর্মীদের দাবি, মিছিল চলাকালীন পুলিশের লাঠিচার্জে তাদের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। যুবদলের মিছিল থেকে ব্যানার কেড়ে নেওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

jagonews24

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকেল ৩টায় যুবদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রাজশাহী মহানগর বিএনপি কার্যালয়ের সামনে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এ কর্মসূচি উপলক্ষে মহানগর যুবদলের একটি মিছিল নগরীর হেতেম খাঁ এলাকার দিক থেকে সভাস্থল যাওয়ার চেষ্টা করে। মিছিলটি নগরীর মালোপাড়া এলাকায় পৌঁছামাত্র পুলিশ সামনে থেকে যুবদলের ব্যানার কেড়ে নেয়। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে যুবদল নেতাকর্মীরা পুলিশের ওপর ইটপাটকেল ছুড়তে থাকেন। পুলিশ পাল্টা ধাওয়া দিয়ে যুবদল নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দেওয়ার চেষ্টা করে। এতে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

এসময় যুবদল নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়তে থাকেন। এরই মধ্যে তাদের ছোড়া একটি হাতুড়ির আঘাতে মালোপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক (এসআই) ইফতেখায়ের আলম গুরুতর আহত হন। এসময় পুলিশের লাঠিপেটায় যুবদলের অন্তত ১০ জন নেতাকর্মী আহত হন বলে দাবি যুবদলের। পরে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

jagonews24

যুবদলের নেতাকর্মীদের মারধরের ঘটনার প্রতিবাদে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও মহানগর বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের নেতৃত্বে যুবদলের ১০-১২ জন নেতাকর্মী মালোপাড়া রাস্তা অবরোধের চেষ্টা করেন। পরে পুলিশ তাদের সেখান থেকে সরিয়ে দেয়।

নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারণ চন্দ্র বর্মন জাগো নিউজকে বলেন, এসআই ইফতেখায়ের আলম আগে থেকেই ঘাড়ের স্পাইনাল কর্ডের অসুস্থতায় ভুগছেন। আজ সকালেও তিনি মেডিকেলে ভর্তি ছিলেন। তার এলাকায় ঘটনা বিধায় তিনি ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন। ভিড়ের মধ্যে হয়তো সামান্য আঘাত লেগেছে। তবে তেমন গুরুতর কিছুই হয়নি।

ফয়সাল আহমেদ/এসআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]