মেয়র আব্বাসের গ্রেফতার-বহিষ্কার চায় রাজশাহী মহানগর আ’লীগ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি রাজশাহী
প্রকাশিত: ০৫:৫৪ পিএম, ২৫ নভেম্বর ২০২১

কাটাখালী পৌর মেয়র আব্বাস আলীকে গ্রেফতার ও দল থেকে বহিষ্কারের দাবি জানিয়েছেন রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের নেতারা। বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) বেলা ১১টার দিকে নগরীর কুমারপাড়ায় মহানগর আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এ দাবি জানান তারা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার বলেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে কাটাখালী পৌর মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক আব্বাস আলী ধৃষ্টতাপূর্ণ অবমাননাকর মন্তব্য করেছেন, যা এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও প্রিন্ট এবং ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় প্রচার হয়েছে। আমরা সবাই জানি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালির অনুভূতি ও আবেগের জায়গা। তাকে নিয়ে কটূক্তি ও অশোভন মন্তব্য করা রাষ্ট্রদ্রোহিতার শামিল।’

তিনি আরও বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে আব্বাসের অবমাননাকর মন্তব্যে সারাদেশের মানুষের মতো রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের নেতারা চরমভাবে মর্মাহত। তার ধৃষ্টতাপূর্ণ অশালীন মন্তব্যের পরিপ্রক্ষিতে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ তাকে সংগঠনের পদ ও প্রাথমিক সদস্য পদ থেকে আজীবন বহিষ্কারের পাশাপাশি তাকে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।’

সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল নিয়ে আপত্তিকর বক্তব্য দেওয়া মেয়র আব্বাসের আরও একটি অডিও ফাঁস হয়। এতে তিনি জাতীয় চার নেতার এক নেতা শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামেনর পুত্র রাসিক মেয়রকে নিয়েও আপত্তিকর মন্তব্য করেন। এছাড়া রাজশাহী নগরকে বর্ধিত করার জন্য নগর পরিকল্পনায় তিনি বাধা এবং কাজ বন্ধ করে দেন। তার এসব মন্তব্য ও কর্মকাণ্ড দেশের সুষ্ঠু রাজনীতির পরিবেশকে অস্থিতিশীল করতে ইন্ধন জোগাবে বলে মনে করেন রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের নেতারা।

অনুষ্ঠানের শেষভাগে নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার বলেন, ‘পৌর মেয়র আব্বাসের বিরুদ্ধে যে তিন মামলা হয়েছে তা মূলত একটি মামলায় রূপান্তরিত হবে। এ নিয়ে মামলার বাদী রাসিকের তিন কাউন্সিলরের সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। আমাদের পক্ষ থেকে তাদের পূর্ণ সাপোর্ট রয়েছে। এছাড়া আব্বাস যেনো কোনো দিন আওয়ামী লীগ না করতে পারেন এজন্য তাকে সারাজীবনের জন্য বহিষ্কারের সুপারিশ করে কেন্দ্রে একটি চিঠি পাঠানো হবে।’

নগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে কোনো মামলা না করার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘যেহেতু বিষয় একটিই, তাই মামলাও একটিই হবে। আমাদের পক্ষ থেকেও মামলার প্রস্তুতি ও উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু দলীয় সিদ্ধান্তের কারণে এ বিষয়ে আমরা কোনো পদক্ষেপ নেইনি।’

সংবাদ সম্মেলনে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আলী কামাল, অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা, সৈয়দ শাহাদাত হোসেন বাদশা, যুগ্ম সম্পাদক আসাদুজ্জামান আজাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মীর ইসতিয়াক আহমেদ লিমন, মহানগর যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. রমজান আলী, মহানগর স্বে চ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জেডু সরকার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ফয়সাল আহমেদ/ইউএইচ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]