বলাৎকারের চেষ্টা করায় মাদরাসা শিক্ষকের বিশেষ অঙ্গ কাটলো ছাত্র

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ময়মনসিংহ
প্রকাশিত: ০৩:০৮ এএম, ০৩ ডিসেম্বর ২০২১
ফাইল ছবি

ময়মনসিংহের নান্দাইলে মো. আতাবুর রহমান (২৮) নামে এক মাদরাসা শিক্ষকের বিশেষ অঙ্গ কেটে দিয়েছে তারই একজন শিক্ষার্থী (১৭)। শিক্ষার্থীর অভিযোগ, শিক্ষক তাকে বলাৎকারের চেষ্টা করেছিল।

বুধবার (১ ডিসেম্বর) রাতে উপজেলার খারুয়া ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। আহত মাদরাসা শিক্ষক আতাবুর রহমান ওই ইউনিয়নের বাসিন্দা।

এদিকে, এ ঘটনায় ওই শিক্ষার্থীকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছেন স্থানীয়রা। পরে বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) রাত ১০টার দিকে নান্দাইল থানায় এ ঘটনায় ছাত্রকে আসামি করে মামলা করেছেন আহত শিক্ষকের বাবা।

বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন নান্দাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান আকন্দ। তিনি বলেন, ‘মামলার পর ওই মাদরাসা শিক্ষার্থীকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। তাকে আদালতে পাঠানো হবে। আহ শিক্ষক বর্তমানে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।’

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ঘটনার দিন রাতে উপজেলার একটি মাদারাসার মাঠে ওয়াজ মাহফিল চলছিল। সেখানে অংশ নেন শিক্ষক আতাবুর রহমান। ওই ওয়াজ মাহফিলে তার দেখা হয় ১৭ বছর বয়সী এক ছাত্রের সঙ্গে। এসময় আতাবুর রহমান ওই ছাত্রকে তার বাড়িতে আমন্ত্রণ জানান। পরে ওই ছাত্র আতাবুর রহমানের সঙ্গে হাঁটতে হাঁটতে বাড়ির দিকে যাচ্ছিল।

পথে শিক্ষক আতাবুর রহমান ছাত্রের সঙ্গে আপত্তিকর আচরণ শুরু করেন। এতে ওই ছাত্র বাধা দিলে শিক্ষক তাকে জোরপূর্বক বলাৎকারের চেষ্টা করেন। এসময় ওই মাদরাসা শিক্ষার্থীর পাঞ্জাবির পকেটে থাকা নখ কাটার যন্ত্র দিয়ে শিক্ষকের বিশেষ অঙ্গ কেটে দেয়। পরে শিক্ষক চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে শিক্ষার্থীকে আটকরে পুলিশে সোপর্দ করেন।

মঞ্জুরুল ইসলাম/এএএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]